আবাসনের ছাদে লাগানো গাছ নির্বিচারে দা দিয়ে কেটেছিলেন খালেদা আক্তার লাকি নামে এক মহিলা। বাংলাদেশের সাভারের সিআরপি রোডের সেই ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড় ওঠে। তার পর বুধবার ওই মহিলাকে আটক করেছে পুলিশ।

সিআরপি রোডের ওই আবাসনের ফাঁকা ছাদের এক প্রান্তে গাছ লাগিয়েছিলেন সুমাইয়া হাবিব নামের এক মহিলা। ডালপালা মেলে বেশ বড় হয়েছিল টবে লাগানো গাছগুলি। ওই আবাসনেরই অন্য ফ্লাটে থাকেন খালেদা নামের ওই মহিলা। ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, সুমাইয়ার লাগানো গাছ নির্বিচারে দা দিয়ে কেটে চলেছেন খালেদা। তাঁর দাবি, ‘গাছ নাকি ছাদের সৌন্দর্য নষ্ট করছে।’ আর এই কাজে তাঁকে সাহায্য করেন তাঁর ছেলেরা। সেই ভিডিয়োতে, গাছ না কাটার জন্য বার বার অনুরোধ করতে শোনা যাচ্ছে সুমাইয়াকে। কিন্তু সেই কথা কানেই তুলছেন না অ ভিযুক্ত ওই মহিলা। বর্বরের মতো তিনি ছাদের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যাচ্ছেন। আর দা দিয়ে কোপ মারছেন গাছগুলিতে। এ ভাবেই একের পর এক গাছে কোপ মারলেন তিনি।

এই ঘটনার ছবি-ভিডিয়ো মঙ্গলবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করেছেন সুমাইয়া। সেই পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘‘কখনও কি শুনছেন মানুষ গাছ অপছন্দ করে? গাছ পরিবেশ নষ্ট করে? এই মহিলার গাছ পছন্দ না। তাঁর বক্তব্য, আমাদের গাছ ছাদের পরিবেশ নষ্ট করে ফেলছে। তাই এই মহিলা আমাদের সব গাছ কেটে ফেলছে। কী অপরাধ ছিল গাছের? কী অপরাধ ছিল কেউ বলতে পারবেন?’’ 

এই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই নিন্দার ঝড় ওঠে। অভিযোগ পৌঁছয় পুলিশের কাছেও। তার পরেই খালেদাকে আটক করে পুলিশ। সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার এএসএম সঈদ বাংলাদেশের এক সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘‘আমরা অভিযোগ পেয়েছি। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তাঁকে আমরা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছি।’’ 

আরও পড়ুন: গাছের গুঁড়ির মধ্যে দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুন! দেখুন ভয়ঙ্কর সেই ভিডিয়ো

আরও পড়ুন: বোমারু জ্যাকেট পরে মোদীকে হুমকি! সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড পাকিস্তানি গায়িকা