সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অক্টোবর বিপ্লবকে কেন নভেম্বর বিপ্লব বলা হয়?

গোটা বিশ্বের কমিউনিস্ট আন্দোলনের আইকন এই বিপ্লব। এত বড় এবং এত উজ্জ্বল বিপ্লব, কিন্তু মাস-তারিখ নিয়ে যেন বেজায় বিভ্রান্তি। অক্টোবর বিপ্লবকে কেন সবাই নভেম্বর বিপ্লব বলেন এখন? উত্তর দিলেন সুহৃদ বন্দ্যোপাধ্যায়।

Lenin
ক্যালেন্ডার বিভ্রাটে এমনও হয়? ইতিহাসে নজির কিন্তু বিরল। —প্রতীকী ছবি / আনন্দবাজার আর্কাইভ থেকে।

ফারাক মাত্র দু’সপ্তাহের। আর তাতেই বদলে গেল সময়।

এই বদলে অবশ্য বদলায়নি ইতিহাস।

এত কথা শুধুমাত্র রুশ বিপ্লবকে কেন্দ্র করে। ১৯১৭ সালের সেই বিপ্লবের আজ বয়স হয়েছে ১০০ বছর। রাশিয়া তো বটেই, অন্য দেশেও শতবর্ষ পালন হচ্ছে সমারোহেই। বিপ্লবের ঐতিহাসিক গুরুত্ব যেমন আছে, তেমনি আছে প্রশ্নও। প্রশ্ন সময় নিয়ে।

ইতিহাসের পাতায় লেখা রয়েছে অক্টোবর বিপ্লব। কিন্তু গোটা বিশ্ব এখন ওই বিপ্লবকে চেনে নভেম্বর বিপ্লব নামে। স্বাভাবিক প্রশ্ন, একই ঘটনা দুই নামে চিহ্নিত কেন। এমন অদ্ভুত ঘটনা পৃথিবীর আর কোনও ঐতিহাসিক ক্ষেত্রে ঘটেনি। সময় বদলে গিয়েছে এমন নজিরও বিরল।

আগেই বলেছি ফারাকের কথা। ব্যবধান মাত্র দু’সপ্তাহ। আর এতেই মাস, তারিখ, দিনক্ষণের আমূল ভোলবদল। সবটাই ঘটে গিয়েছে নিঃশব্দে। ঘটে গিয়েছে ক্যালেন্ডারের কারসাজিতে।

রুশ বিপ্লব যখন হয়, তখন সে দেশে হাতে মাথা কাটছে জারতন্ত্র। ওজনে-অহঙ্কারে সে নিজেকে অন্যের সঙ্গে মেলাতে রাজি নয়। সব কিছুতেই অন্যের চেয়ে আলাদা পথে চলাতেই তার শ্লাঘা। ফলে সময়ের গণনাতেও সেই সময়ের রাশিয়া ভিন্ন পথে।

একশো বছর আগে দু’ধনের ক্যালেন্ডারের অস্তিত্ব ছিল পৃথিবীতে— গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার এবং জুলিয়ান ক্যালেন্ডার। রুশ বিপ্লব যখন ঘটে, সে সময় গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারই মেনে চলা হত রাশিয়ায়। একই সময়ে পৃথিবীর অন্যান্য দেশে চালু ছিল জুলিয়ান ক্যালেন্ডার। বিপ্লবের সময়কাল ছিল ২৪ অক্টোবর। আর সেটাই জুলিয়ানের দৌলতে এ দেশে ৭ নভেম্বর।

ইতিহাসের পাতায় ‘অক্টোবর বিপ্লব’ শব্দবন্ধ আজও লেখা হয়ে চলেছে। কিন্তু রাশিয়া-সহ সব দেশেই এই বিপ্লবের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয় নভেম্বর মাসে। রাশিয়া এখন আর গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে আটকে নেই। জুলিয়ানের হাত ধরেই এখন তার পথ চলা। তাই সারা পৃথিবীই এখন অক্টোবর বিপ্লবকে নভেম্বর বিপ্লব নামে চেনে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন