ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ‘হাল্ক’-এর মতো বেরিয়ে আসবে ব্রিটেন— রবিবার এমনটাই বলেছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তাঁর দাবি, ব্রেক্সিট আলোচনার প্রস্তুতি ‘দারুণ’ চলছে।

সোমবার লুক্সেমবার্গে ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান জঁ ক্লদ ইয়ুঙ্কার এবং ইউরোপীয় মীমাংসাকারী মাইকেল বার্নিয়েরের সঙ্গে বৈঠক করার কথা জনসনের। তার আগে ব্রিটিশ দৈনিকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘‘হাল্ক (কমিক চরিত্র) যত পাগল হয়, তত সে শক্তিশালী হয়ে ওঠে আর তার পর বেঁচেও যায়। তাকে যতই আটকানোর চেষ্টা করা হোক না কেন! আমাদের দেশের ক্ষেত্রেও সেটা বলা যায়।’’ প্রধানমন্ত্রীর দাবি, চুক্তি করেই ইইউ থেকে বেরিয়ে আসবে ব্রিটেন। বরিস মুখে যতই এ সব বলুন, বিরোধীরা তাতে ভুলছেন না। ব্রেক্সিট-বিরোধী প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন তাঁর স্মৃতিকথা ‘ফর দ্য রেকর্ড’-এ সমালোচনা করেছেন বরিসের। শুধু রাজনৈতিক উচ্চাকাঙ্ক্ষা থেকেই বরিস ব্রেক্সিট করতে মরিয়া বলে মনে করছেন ক্যামেরন। তিনি সমালোচনা করেছেন বরিসের মন্ত্রিসভার ভারতীয় বংশোদ্ভূত মন্ত্রী প্রীতি পটেলেরও। ক্যামেরনের বক্তব্য, প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন তাঁকে সবচেয়ে আঘাত দিয়েছিলেন প্রীতিই। বইটি প্রকাশ হবে আগামী বৃহস্পতিবার।