বড় রাস্তা দিয়ে একের পর এক গাড়ি হু হু করে ছুটে চলেছে। সকলেরই নজর আটকে যাচ্ছে একটা অদ্ভুত দৃশ্যে। রাস্তার ধারের নির্দেশিকা লাগানো সারা গায়ে টেপ জড়িয়ে একটি পোস্টের সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে বাঁধা অবস্থায় ঝুলছে এক যুবক। কেউ বা কারা যেন তাঁকে বেঁধে রেখে চম্পট দিয়েছে। এই অদ্ভুত দৃশ্য দেখতে গিয়ে নির্দিষ্ট ওই ক্রসিংয়ে কমে যাচ্ছে গাড়ির গতিও। এই দৃশ্য দেখে অনেকেই ওই যুবককে মুক্ত করতে ফোন করেছেন পুলিশে। ঘন ঘন ফোন পেয়ে পুলিশও পৌঁছয় ঘটনাস্থলে। পোস্টের সঙ্গে বাঁধা অবস্থায় ঝুলে থাকা যুবককে দেখে হতবাক হয়ে যান তাঁরাও। ইতিমধ্যে পুলিশ আধিকারিকরা লক্ষ্য করেন, আর এক যুবক ছুরি হাতে পা টিপে টিপে এগিয়ে আসছে পোস্টে বাঁধা ওই যুবকের দিকেই। একটুও দেরি না করে পুলিশ সার্ভিস রিভলভার বের করে ওই দ্বিতীয় যুবকের দিকে তাক করে তাঁকে তাঁর হাতের অস্ত্রটি ফেলতে বলে। একটুও দেরি না করে ছুরি ফেলে দু’ হাত উপরে তুলে দ্বিতীয় যুবকটি ধরা দেয় পুলিশের কাছে। আর এই দ্বিতীয় যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ করেই পোস্টে বাঁধা ওই যুবকের দুরবস্থার নেপথ্য কাহিনি সামনে আসে। আর এই কাহিনি আরও চমকে দিয়েছে ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশ আধিকারিকদের।

জানা যায়, অনলাইন গেম-এ বাজি ধরে হেরে যান মিগুয়েল স্যাভেজ। বাজির শর্ত অনুযায়ী তাঁর বাকি বন্ধুরা তাঁকে ওই ভাবে পোস্টের সঙ্গে বেঁধে ঝুলিয়ে রেখে চম্পট দেয়। গোটা ঘটনা শোনার পর যুবককে বাঁধন মুক্ত করে বাড়ি পৌঁছে দেয় পুলিশ। বন্ধুদের বিরুদ্ধে মিগুয়েলের কোনও অভিযোগ না থাকায় এই ঘটনায় কাউকেই গ্রেফতার বা আটক করা হয়নি। জানা গিয়েছে, দ্বিতীয় যুবকটি মিগুয়েলের সেই বাজিতে জেতা বন্ধুদের এক জন। বিষয়টি পুলিশ পর্যন্ত গড়ানোয় ভয় পেয়ে মিগুয়েলের বাঁধন খুলতে আসছিলেন তিনি।

দিন তিনেক আগে অদ্ভুত এই ঘটনাটি ঘটেছে টেক্সাসের হস্টন শহরে। এই ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মার্কিন মুলুকের একাধিক নিউজ চ্যানেলে এই মজার ঘটনাটি নিয়ে খবরও সম্প্রচারিত হচ্ছে।

দেখুন ভিডিও: