রাতে গুটখা কিনতে বেরিয়ে আর ফেরেনি। পরিবারের অভিযোগ, পুলিশ সক্রিয় হলে তাঁদের মেয়ের এই পরিণতি হত না। সকালে বাড়ির কাছেই নর্দমার পাশে উদ্ধার হয় ওই নাবালিকার অর্ধনগ্ন দেহ। ভোপাল পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ধর্ষণের পর গলা টিপে খুন করা হয়েছে ওই নাবালিকাকে। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতেএক এএসআই-সহ ৬ পুলিশ কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। ধর্ষণ ও খুনে অভিযুক্ত এক যুবককে খুঁজছে পুলিশ।

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার রাতে। ভোপালের কমলানগরের বাসিন্দা ওই নাবালিকা শনিবার সন্ধ্যার পর গুটখা কিনতে বাড়ি থেকে বেরোয়। দীর্ঘক্ষণ পরও ফিরে না আসায় বাড়ি লোকজন পুলিশে খবর দেন। নিজেরাও রেলস্টেশন, বাসস্ট্যান্ড-সহ বহু জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাননি। অবশেষে রবিবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে একটি নর্দমার পাশে মেলে তার মৃতদেহ।

নাবালিকার পরিবারের লোকজনের অভিযোগ, পুলিশ তাঁদের অভিযোগে কার্যত কোনও গুরুত্বই দেয়নি। উল্টে এমন কথাও বলেছে যে, ওই নাবালিকা কোনও ছেলের সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছে। রাতে কয়েক জন পুলিশকর্মী বাড়িতে এলেও তাঁরা খোঁজাখুঁজির কোনও চেষ্টাই করেননি। স্থানীয় কাউন্সিলরকে তাঁরা বিষয়টি জানানোর পর তিনি পুলিশ অফিসারদের ফোন করে বিষয়টি জানান। এর পরও পুলিশ সে ভাবে সক্রিয় হয়নি বলে অভিযোগ।

পরিবারের লোকজনের এই অভিযোগের পরই কর্তব্যরত ৬ পুলিশকর্মী-অফিসারকে সাসপেন্ড করেছে মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। মন্ত্রী বালা বচ্চন বলেন, ‘‘৬ জন পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করা হেয়ছে। কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাউকে ছাড়া হবে না।’’

আরও পডু়ন: প্রদীপের বাড়ির সামনে চাপ চাপ রক্ত, পড়ে রয়েছে বুলেটের খোল, হাটগাছিয়ায় জারি ১৪৪ ধারা

আরও পড়ুন: কাল প্রধানমন্ত্রী-রাজ্যপাল বৈঠক, মোদীকে সন্দেশখালির রিপোর্ট দিতে পারেন কেশরীনাথ

মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানোর পাশাপাশি তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।  প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ কার্যত নিশ্চিত, ধর্ষণ করে তার পর খুন করা হয়েছে ওই নাবালিকাকে। প্রাথমিক তদন্তে এক যুবকের নাম উঠে এসেছে এই ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায়। অভিযুক্ত যুবকও নিহত নাবালিকার বাড়ির কাছাকাছিই থাকে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।

পুলিশ যদিও গাফিলতির অভিযোগ অস্বীকার করেছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অখিল পটেল বলেন, ‘‘আমরা ময়নাতদন্তের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছি। তবে প্রাথমিক তদন্তে মনে হয়েছে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। আমরা এক জনকে চিহ্নিত করেছি। খুব শীঘ্রই তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।’’ ভোপালের আইজি যোগেশ দেশমুখের মন্তব্য, ‘‘শনিবার রাতে নিখোঁজের অভিযোগের পেয়ে প্রায় সারা রাত তল্লাশি চালিয়েছেন পুলিশকর্মীরা। সকালে নাবালিকার মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে।’’