পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, ধর্ষণে অভিযুক্ত স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাম রহিম, আসারাম বাপুকে অনলাইনে বিজেপির ‘সদস্য’ করে গ্রেফতার গুলাম ফরিদ শেখ নামে আমদাবাদের এক ব্যক্তি। আমদাবাদ পুলিশের অপরাধ দমন শাখা ৪০ বছর বয়সি গুলামের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগে মামলা করেছে।

নরেন্দ্র মোদী দ্বিতীয়বার কুর্সিতে বসার পরেই দলের অনলাইন সদস্যপদ সংগ্রহে জোর দিয়েছে বিজেপি। সম্প্রতি দেখা যায়, অনলাইনে বিজেপির সদস্য হওয়ার জন্য আবেদন করেছেন ইমরান, আসারাম, রাম রহিমরাও! সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি সামনে হইচই শুরু হয়। বিজেপির সদস্য হিসেবে ইমরান খানের সচিত্র পরিচয়পত্র সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে। সেখানে ইমরানের ছবির সঙ্গে রাজ্যের নাম লেখা হয়েছে পাকিস্তান। সদস্যপদের নম্বরও দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি আমদাবাদ শহরের বিজেপি সাধারণ সম্পাদক কমলেশ  পটেলের কাছে পৌঁছয়। তিনি অভিযোগ এনেছেন, বিজেপির সম্মানহানি করতেই  অভিযুক্ত ওই মেম্বারশিপ কার্ডগুলি বিভিন্ন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ছড়িয়েছেন। এই অভিযোগে পুলিশে এফআইআর করেন আমদাবাদের ওই বিজেপি নেতা। তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, আমদাবাদের শাহপুরের বাসিন্দা গুলাম ফরিদ শেখ এ সবের পিছনে রয়েছে। তার পরে কাল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গুলামের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়েছে। তবে তিনি রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে নাকি নেহাতই মজার ছলে এই ঘটনা ঘটিয়েছেন, তা জানা যায়নি। ওই ব্যক্তি নিজেও অনলাইনে বিজেপির সদস্য হিসেবে নাম নথিভুক্ত করেছেন। তার পরে ইমরানদের নাম অনলাইনে রেজিস্টার করিয়ে দিয়েছেন। সেখান থেকে পাওয়া মেম্বারশিপ কার্ডের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিয়েছেন তিনি।