• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এক দেশ এক ভোটে ঐকমত্য চায় কমিশন

ECI
ছবি: সংগৃহীত।

নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহেরা দীর্ঘ দিন ধরেই সরব ‘এক দেশ এক ভোট’ নিয়ে। বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের যুক্তি, খরচ কমাতে দেশে লোকসভা ও রাজ্যগুলির বিধানসভা ভোট হোক একসঙ্গে। আজ মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা জানান, অতীতে ভারতে একসঙ্গে ভোটের নজির রয়েছে। তাই নীতিগত ভাবে কমিশনের এতে আপত্তি নেই। কিন্তু রাজনৈতিক দলগুলিকে এ বিষয়ে একমত হতে হবে। 

দেশ জুড়ে সারা বছর কোথাও না কোথাও নির্বাচন হওয়ায় সরকারের যেমন খরচ বাড়ছে, তেমনই উন্নয়ন বাধা পাচ্ছে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। ওই ব্যবস্থা পাল্টানোর জন্য নির্বাচন কমিশনে দাবিপত্রও দিয়েছে বিজেপি। গত জুন মাসে এ নিয়ে একটি কমিটি গড়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। ডাকা হয় সর্বদলীয় বৈঠক। কিছু দল সরকারের পক্ষে থাকলেও, বিরোধিতায় সরব হয় বাম দলগুলি। আপত্তি রয়েছে তৃণমূলেও। 

নির্বাচন কমিশনের মতে, পরিকাঠামোগত সমস্যা না থাকলেও, এক দেশ এক ভোট করার প্রশ্নে প্রয়োজনীয় আইনি সংস্থান সংবিধানে নেই। সবার আগে তা করা প্রয়োজন। সে জন্য সব ক’টি রাজ্যের একমত হওয়া প্রয়োজন বলে মত নির্বাচন কমিশনের। আজ এ নিয়ে অরোরাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘১৯৬৭ সাল পর্যন্ত এ দেশে লোকসভা-বিধানসভা ভোট এক সঙ্গে হয়ে এসেছে। তাই কমিশনের নীতিগত আপত্তি নেই। কিন্তু রাজনৈতিক দলগুলিকে আগে একমত হতে হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন