চূড়ান্ত এনআরসি তালিকায় নাম না এলেও আশঙ্কার কোনও কারণ নেই। তালিকাছুটরা নাগরিকত্ব প্রমাণের পর্যাপ্ত সময় ও সুযোগ পাবেন বলে আশ্বাস দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

গতকাল ও আজ, এনআরসি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিভিন্ন দফতরের সঙ্গে পর্যালোচনা বৈঠক করেন অমিত শাহ। ছিলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়ালও। চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জি প্রকাশের পরে অশান্তির আশঙ্কা করছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব রাজীব গৌবা-সহ একাধিক পদস্থ আধিকারিক আজ আলোচনায় ছিলেন। মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, ৩১ অগস্ট তালিকা প্রকাশের পরে তালিকাছুটদের ফের আবেদন জানানোর সময়সীমা ৬০ থেকে বাড়িয়ে ১২০ দিন করা হল। মামলা শুরুর ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ট্রাইব্যুনাল রায় দিলে তবেই কাউকে বিদেশি বলে চিহ্নিত করা যাবে। মন্ত্রক জানায়, রাজ্য সরকার তালিকাছুটদের সব ধরনের সাহায্য করবে। চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের সময় রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি রক্ষার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর দাবি অনুযায়ী পর্যাপ্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী বরাদ্দের ৭ বিষয়েও কেন্দ্র আশ্বাস দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৪১ লক্ষ নাম তালিকার বাইরে রয়েছে।