কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের পথচলা শুরু হতে বাকি এক সপ্তাহেরও কম সময়। তখনই ফের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করলেন, বিশেষ মর্যাদা লোপের ফলে কাশ্মীরের উন্নয়নের পথই প্রশস্ত হয়েছে। তাঁর আরও দাবি, কাশ্মীরে বিক্ষোভ দমন করতে একটি গুলিও ছুড়তে হয়নি। কারও মৃত্যুও হয়নি। জঙ্গিদেরও দিন শেষ হয়ে এসেছে।

অমিতের বক্তব্য, ‘‘সংসদে কংগ্রেস নেতারা দাবি করেছিলেন, কাশ্মীরে অনেক রক্তপাত হবে। কিন্তু কিছুই হয়নি। গুলি চলেনি। কারও মৃত্যু হয়নি। শান্তিপূর্ণ ভাবে উন্নয়নের পথে হাঁটছে কাশ্মীর।’’ অমিতের দাবি, ‘‘সর্দার পটেল দেশীয় রাজ্যগুলিকে ভারতের অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন। কিন্তু কাশ্মীর তার বাইরে থেকে গিয়েছিল। বিশেষ মর্যাদা লোপ করে নরেন্দ্র মোদী কাশ্মীরকে বরাবরের জন্য ভারতের সঙ্গে যুক্ত করেছেন। তিনি পটেলের স্বপ্নপূরণ করেছেন।’’

অমিতের দাবি, ‘‘ভারতের লৌহপুরুষ পটেলকে ৭০ বছর ধরে অপমান করা হয়েছে। গুজরাতে তাঁর মূর্তি গড়ে সুদে আসলে সেই অপমান শোধ করে দেওয়া হয়েছে। এখন স্ট্যাচু অব ইউনিটি দেখতেই সব চেয়ে বেশি পর্যটক যান।’’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, ঐক্যের বার্তা দিতে ফের পটেলের মূর্তির কাছে যাবেন মোদী।

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান নিয়ে মোদীর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন অমিত। তাঁর কথায়, ‘‘ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর মতের গুরুত্ব কতটা তা মোদীই বিশ্বকে বুঝিয়েছেন।’’ ক‌ং‌গ্রেসকে কটাক্ষ করে অমিতের বক্তব্য, ‘‘৭০ বছর ধরে দেশ শাসন করে ওঁরা মানুষকে অত্যাবশ্যকীয় সুযোগ সুবিধে দিতে পারেননি।
শৌচালয়কে উন্নয়নের সূচক ধরাকে ওঁরা ব্যঙ্গ করেছিলেন। যাঁদের রূপোর চামচ মুখে দিয়ে জন্ম তাঁরা গরিবের ঘরে শৌচালয়, গ্যাস সিলিন্ডারের প্রয়োজনীয়তার কথা বুঝতে পারবেন না।’’