বিজেপি নেতাদের দায়ের করা দু’টি মানহানি মামলায় জামিন পেলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল এবং তাঁর ডেপুটি মণীশ সিসোদিয়া। মঙ্গলবার দিল্লির রাউজ অ্যাভিনিউ জেলা আদালতের অতিরিক্ত মুখ্য মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সমর বিশাল তাঁদের জামিন মঞ্জুর করেন। দু’জনকে ১০ হাজার টাকা করে ব্যক্তিগত বন্ড জমা দিতে বলেন তিনি।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর জনসমক্ষে একাধিক বার আক্রান্ত হয়েছেন আম আদমি পার্টির প্রধান কেজরিবাল। কখনও কালি, কখনও লঙ্কাগুঁড়ো তো কখনও আবার জুতো ছোড়া হয়েছে তাঁকে লক্ষ্য করে। এমনকি গত ৪ মে লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে পথসভা চলাকালীন সপাটে চড়ও খেতে হয় তাঁকে।

রাজনৈতিক প্রতিহিংসা মেটাতে বিজেপি তাঁর উপর হামলা করাচ্ছে বলে সেইসময় মন্তব্য করেন কেজরীবাল। এমনকি ইন্দিরা গাঁধীর মতো ব্যক্তিগত দেহরক্ষীকে দিয়ে তাঁকেও খুন করা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। আর বিজেপি-ই তা করাতে পারে বলে অভিযোগ তোলেন।

আরও পড়ুন: কর্নাটক জট কাটার ইঙ্গিত, বিদ্রোহী বিধায়কদের মামলার রায় আগামিকাল, জানাল সুপ্রিম কোর্ট​

এই মন্তব্যের জেরে কেজরিবালের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন বিজেপি বিধায়ক তথা দিল্লি বিধানসভার বিরোধী নেতা বিজেন্দ্র গুপ্ত। মামলা করেন দিল্লির উপ মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়ার বিরুদ্ধেও। আদালতে বিজেন্দ্র জানান, ‘‘বিজেপির ঘাড়ে হামলার দায় চাপিয়েছিলেন কেজরিবাল। সেই ষড়যন্ত্রে আমি জড়িত বলে টুইটারে দাবি করেছিলেন সিসোদিয়া। তাতে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে।’’ কেজরিবাল ও সিসোদিয়া তাঁর কাছে ক্ষমাও চাননি বলে দাবি করেন বিজেন্দ্র গুপ্ত।

আরও পড়ুন: টলিউডে আবার চমক গেরুয়া সংগঠনের, বিসিপির হয়ে সওয়াল মাধবী মুখোপাধ্যায়ের​

এর পাশাপাশি, বিজেপির বিরুদ্ধে দিল্লির ভোটার তালিকা থেকে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়-সহ প্রায় ৩০ লক্ষ নাম বাদ দেওয়ার অভিযোগও তুলেছিলেন আপ প্রধান। তা নিয়েও কেজরীবাল, মণীশ সিসোদিয়া, দলের রাজ্যসভা সাংসদ সুশীলকুমার গুপ্ত, বিধায়ক মনোজকুমার এবং আপ মুখপাত্র অতিশী মারলেনার  বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন বিজেপির রাজীব বব্বর।

এই দুই মামলার শুনানির জন্যই এ দিন আদালতে ডাক পড়েছিল কেজরিবালদের। সেখানেই জামিন মঞ্জুর হয়ে যায় তাঁদের।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।