সুপ্রিম কোর্ট চূড়ান্ত এনআরসি প্রকাশের নির্ধারিত সময়সীমা ১৬ দিন পরে শেষ হচ্ছে। তার আগে জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আর্জি জানাল কেন্দ্র ও অসম সরকার। আর্জি বিবেচনার আশ্বাস দিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। ৯ জুলাই সুপ্রিম কোর্টে দুই সরকার তাদের আবেদনে জানিয়েছে, সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে ২০% ও বাকি সব জেলায় ১০% খসড়া ফের যাচাইয়ের প্রয়োজন রয়েছে। ১০ জুলাইয়ের শুনানি বাতিল হয়।

সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও বিচারপতি রোহিন্টন ফলি নরিম্যানের ডিভিশন বেঞ্চ বিষয়টি নিয়ে আর কোনও শুনানির দিন ধার্য করেনি। সে কারণে আজ সলিসিটার জেনারেল তুষার মেহতা প্রধান বিচারপতির কাছে দ্রুত শুনানির আবেদন জানান। গগৈ জানতে চান, ফের শুনানির কী প্রয়োজন? ১ অগস্ট তো চূড়ান্ত এনআরসি চলেই আসবে। মেহতা বলেন, ৩১ জুলাই সময় শেষ হচ্ছে। তার আগে শুনানি জরুরি। গগৈ জানান, বিষয়টি বিবেচনা করবেন।

রাজ্য সরকারের আইনজীবীদের আশা, কাল-পরশুর মধ্যেই শুনানি হবে। সেখানে বুঝিয়ে বলা হবে, এনআরসি প্রক্রিয়ায় বেশ কিছু ফাঁক রয়েছে। ঘুষ নিয়ে নাম ঢোকানোর ঘটনা সামনে এসেছে। সীমান্তের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হারও বেশি। চলছে অনুপ্রবেশ। মামলার মূল আবেদনকারী আসাম পাবলিক ওয়ার্কস (এপিডব্লিউ) ২২ জেলায় এনআরসির খসড়ার ১০০% পূনর্মূল্যায়নের দাবি তুলেছে।