• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মঙ্গলবার থেকে রোজ শুনানি শুরু

ayodhya
পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছে, ৬ অগস্ট, মঙ্গলবার থেকে অযোধ্যা মামলার রোজ শুনানি শুরু হবে।

Advertisement

আগামী সপ্তাহ থেকেই অযোধ্যার রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ জমি বিবাদের নিষ্পত্তি করতে সুপ্রিম কোর্টে রোজ শুনানি শুরু হচ্ছে। 

গতকাল প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছে, ৬ অগস্ট, মঙ্গলবার থেকে অযোধ্যা মামলার রোজ শুনানি শুরু হবে। রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ বিবাদের নিষ্পত্তি করতে সুপ্রিম কোর্ট মধ্যস্থতার নির্দেশ দিয়েছিল। প্রাক্তন বিচারপতি এফ এম খলিফুল্লা, ধর্মগুরু শ্রীশ্রী রবিশঙ্কর এবং আইনজীবী শ্রীরাম পঞ্চুর মধ্যস্থতায় কোনও ফল মিলছে না বলে সুপ্রিম কোর্টে যান অন্যতম মামলাকারী অযোধ্যার গোপাল সিংহ বিশারদ। আদালতের নির্দেশে মধ্যস্থতাকারীরা সুপ্রিম কোর্টে মুখবন্ধ খামে রিপোর্ট জমা দেন। 

আজ প্রধান বিচারপতি জানান, মধ্যস্থতার প্রক্রিয়ায় কোনও চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়নি। তাই ৬ অগস্ট থেকে রোজ শুনানি হবে, যত দিন না সব পক্ষের বক্তব্য শোনা শেষ হয়। স্বাভাবিক ভাবেই সুপ্রিম কোর্ট রোজ শুনানিতে রাজি হওয়ায় উৎফুল্ল বিজেপি-আরএসএস শিবির। মোদী সরকারের মন্ত্রী অশ্বিনী চৌবে বলেন, ‘‘সুপ্রিম কোর্টের আগেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত ছিল। আমার বিশ্বাস, দেশের কোটি কোটি মানুষের ভাবনা দেখে সুপ্রিম কোর্ট উচিত সিদ্ধান্ত নেবে।’’ আরএসএস-এর শীর্ষ নেতা সুরেশ ভাইয়াজি জোশী বলেন, ‘‘আমাদের বিশ্বাস, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলা এই বিবাদের নিষ্পত্তি হবে। আইনি বাধা দূর করে মন্দির তৈরির কাজ শীঘ্র শুরু হবে।’’ আর অন্যতম মামলাকারী অযোধ্যার মৌলানা মুফতি হাসবুল্লার মন্তব্য, ‘‘ইনসাফ হবে বলেই আশা করি।’’

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ আগামী ১৭ নভেম্বর অবসর নেবেন। তার আগেই তিনি অযোধ্যা মামলার নিষ্পত্তি করতে চাইছেন কি না, তা নিয়ে আইনজীবী মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। রোজ শুনানির অর্থ, প্রতি সপ্তাহের মঙ্গল-বুধ-বৃহস্পতিবার সারাদিন শুনানি। সোম এবং শুক্র সুযোগ হলে শুনানি হবে দ্বিতীয়ার্ধে। এই সূচির ফলে দুর্গাপুজো-দীপাবলির ছুটি বাদ দিলে অবসরের আগে প্রায় ৪০টি কার্যদিবস থাকছে প্রধান বিচারপতির হাতে। কিন্তু আজ সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড বলেছে, তাদের বক্তব্যই শেষ করতে ২০ দিন লাগবে। অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার আইনজীবী অনুপ বসু বলেছেন, ‘‘ওঁর অবসরের আগে শুনানি শেষ না-হলেও সমস্যা নেই। কারণ সম্ভাব্য পরবর্তী প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চে রয়েছেন। তিনি কাজ এগিয়ে নিয়ে যাবেন।’’

২০১০-এ ইলাহাবাদ হাইকোর্ট অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমির দু’ভাগ হিন্দুদের ও এক ভাগ মুসলিমদের মধ্যে ভাগ করে দিয়েছিল। তার বিরুদ্ধে সব পক্ষই সুপ্রিম কোর্টে যায়। সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী রাজীব ধবন আজ আদালতে বলেন, বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী একটি মামলা করে দ্রুত শুনানির পাশাপাশি অযোধ্যার ওই স্থানে প্রার্থনা তাঁর সাংবিধানিক মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে বলে দাবি করেছেন। এই বিষয়টিরও নিষ্পত্তি হওয়া দরকার। কিন্তু প্রধান বিচারপতি বলেন, পরে বিষয়টি দেখা যাবে।  

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন