অত তাড়াহুড়ো করলে পেরে উঠবেন না। সপ্তাহে টানা পাঁচ দিন অযোধ্যা মামলার শুনানি হলে, তাঁকে বাধ্য হয়েই সরে দাঁড়াতে হবে। সুপ্রিম কোর্টে শুক্রবার এ কথা জানালেন একটি মুসলিম সংগঠনের কৌসুঁলি প্রবীণ আইনজীবী রাজীব ধওয়ন।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে শীর্ষ আদালতের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে এ দিন ‘রামলালা বিরাজমান’ সংগঠনের কৌসুঁলি ধওয়ন বলেন, ‘‘হুজুর, সপ্তাহে টানা পাঁচ দিনই শুনানি হলে (অযোধ্যা মামলা) আমার পক্ষে সওয়াল করা অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে। এটা আমার উপর এক ধরনের নির্যাতন। আমার মনে হয়, বিচারপতি চন্দ্রচূড় ছাড়া বেঞ্চের আর কোনও সদস্যই ইলাহাবাদ হাইকোর্টের রায় এখনও পুরোটা পড়ে দেখেননি। সেই রায়ে যে সব নথিপত্র রয়েছে, তার বেশির ভাগই উর্দু বা সংস্কৃতে লেখা। তার পাঠোদ্ধার করাটাও বেশ কষ্টসাধ্য।’’

আইনজীবী ধওয়নের ওই আর্জি শুনে প্রধান বিচারপতি গগৈ বলেন, ‘‘আপনার আর্জি বিবেচনা করা হবে।’’ তার পরেই ‘রামলালা বিরাজমান’ সংগঠনের আর এক কৌসুঁলি কে পরাশরণের বক্তব্য শোনেন সাংবিধানিক বেঞ্চের পাঁচ সদস্য।

আরও পড়ুন- ইদের আগে কাশ্মীরে কড়াকড়ি কিছুটা শিথিল, আংশিক ভাবে ফিরল টেলিফোন-ইন্টারনেট পরিষেবা​

আরও পড়ুন- ‘কাশ্মীরে ভোট হবে, উন্নয়নও,’ বললেন মোদী​