সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদের পর কাশ্মীরে কি শিশুদেরও নির্বিচারে আটক করা হচ্ছে? পরিস্থিতি কি এমনটাই যে স্থানীয় মানুষ আর্জি জানাতে যেতে পারছেন না জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টেও? শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের বক্তব্য জানতে চাইল। রিপোর্ট দিতে বলল এক সপ্তাহের মধ্যে।

আদালতে দায়ের করা একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে শীর্ষ আদালতের একটি বেঞ্চ এ দিন বলেছে, ‘‘নির্বিচারে আটক করার বিষয়টি কখনই গ্রহণযোগ্য নয়। তা সে শিশুই হোক বা প্রবীণ।’’

তবে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ ৩৭০ ধারা রদের পর জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টেও যেতে পারছেন না, এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘‘আমি অবশ্য জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির কাছ থেকে অন্য কথাই শুনেছি। তবু দায়ের হওয়া অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্থানীয় প্রশাসনের বক্তব্য জানাটা জরুরি।’’

আরও পড়ুন- কাশ্মীরে পুলিশের মার সাংবাদিকদের​

আরও পড়ুন- বিশ্ববিদ্যালয়ে এখনও চলছে জাতিবৈষম্য? কেন্দ্রের বক্তব্য জানতে চাইল সুপ্রিম কোর্ট​

মামলার শুনানির শেষ দিনে অভিযোগকারীদের তরফে কৌঁসুলি প্রবীণ আইনজীবী এইচ আহমেদি শীর্ষ আদালতে বলেন, ‘‘কাশ্মীরের যা পরিস্থিতি, তাতে আমরা জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে যেতে পারিনি।’’