• সংবাদ সংস্থা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পাকিস্তানকে বার্তা নরবণের

নতুন কাজের কৌশলে জোর রাওয়তের

Bipin Rawat
n হস্তান্তর: নয়া সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পরে পূর্বসূরি তথা দেশের নতুন সিডিএস জেনারেল বিপিন রাওয়তের সঙ্গে করমর্দন জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নরবণের (বাঁ দিকে)। মঙ্গলবার দিল্লিতে। ছবি: পিটিআই।

Advertisement

সমালোচনার মধ্যেই বছরের শেষ দিনে সেনাপ্রধানের পদ থেকে অব্যাহতি নিয়ে দেশের প্রথম ‘চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ’ (সিডিএস) দায়িত্ব নিলেন জেনারেল বিপিন রাওয়ত। জানালেন, নতুন কাজ কী ভাবে করতে হবে তা নিয়ে কৌশল স্থির করবেন। অন্য দিকে নয়া সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নিয়ে পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিলেন জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নরবণে।

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন প্রসঙ্গে মুখ খুলে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন জেনারেল রাওয়ত। পদের সীমা লঙ্ঘন করে রাজনীতি নিয়ে মুখ খোলায় তাঁকে সরানোর দাবি তুলেছিল কংগ্রেস। সেই রাওয়তই প্রথম সিডিএস হওয়ায় সমালোচনার সুর আরও চড়িয়েছে কংগ্রেস। দলের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালার কথায়, ‘‘খুব ভুল বার্তা দিয়ে কাজ শুরু করল সরকার। এর ফল পরে বোঝা যাবে।’’

আজ নিয়ম মেনে নয়া সেনাপ্রধান নরবণের হাতে দায়িত্ব তুলে দেন রাওয়ত। তার আগে জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানান তিনি। সেখানে তাঁকে সেনাপ্রধান হিসেবে শেষ ‘গার্ড অব অনার’ দেয় সেনা। তার পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে রাওয়ত বলেন, ‘‘এত দিন সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্বের উপরেই মনোযোগ দিয়েছিলাম। নতুন পদে কী ভাবে কাজ করব তা নিয়ে কৌশল স্থির করতে হবে।’’

বিপিন রাওয়ত সম্পর্কে এই তথ্যগুলি জানেন কি?

এ দিন বাহিনীর তরফে সিডিএসের উর্দি ও প্রতীক (ইনসিগনিয়া) প্রকাশ করা হয়েছে। ওই লোগোতে সশস্ত্র বাহিনীর তিন শাখার প্রতীকের মিশ্রণ ঘটেছে। সেইসঙ্গে সামরিক বিষয়ক দফতর (ডিপার্টমেন্ট অব মিলিটারি অ্যাফেয়ার্স) তৈরি-সহ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে আজ বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। নতুন সামরিক বিষয়ক দফতরের দায়িত্বে থাকবেন জেনারেল রাওয়ত। নয়া পদে নিযুক্ত হওয়ায় আমেরিকা ও মলদ্বীপের তরফে তাঁকে অভিনন্দন জানানো হয়েছে। 

আরও পড়ুন: বিক্ষোভ নেভাতে অর্থ-বর্ষণ অসমে

অন্য দিকে এ দিন দায়িত্ব নিয়েই পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিয়েছেন নয়া সেনাপ্রধান। জেনারেল নরবণে বলেন, ‘‘পাকিস্তান যদি সন্ত্রাসে মদত দেওয়া বন্ধ না করে তবে প্রয়োজনে জঙ্গি হানার আগেই সন্ত্রাসের উৎসে আঘাত হানার অধিকার ভারতের আছে।’’ তাঁর মতে, সন্ত্রাসে মদত থেকে নজর ঘোরানোর অনেক চেষ্টা করেছিল পাক সেনাবাহিনী। কিন্তু তা ব্যর্থ হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা লোপের পরে সেখানে পরিস্থিতির অনেক উন্নতি হয়েছে। চিনের সঙ্গে ৩৫০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে জেনারেল নরবণে বলেন, ‘‘পশ্চিম থেকে উত্তর সীমান্তে নজর ঘুরিয়েছে সরকার। সেখানে পরিকাঠামো বাড়ানো হচ্ছে।’’ এ দিনই জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিজি দিলবাগ সিংহ দাবি করেন, ‘‘গত বছরের তুলনায় ২০১৯ সালে জঙ্গি হানার ঘটনা ৩০ শতাংশ কমে গিয়েছে। কমেছে অনুপ্রবেশকারী জঙ্গির সংখ্যাও। গত বছরে জঙ্গি দলে যোগ দিয়েছিল ২১৮ জন স্থানীয় যুবক। চলতি বছরে যোগ দিয়েছে ১৩৯ জন। তার মধ্যে ৮৩ জন জঙ্গি এখনও সক্রিয়। ৩৯ জন নিহত হয়েছে। বাকিরা হয় গ্রেফতার হয়েছে বা আত্মসমর্পণ করেছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন