৫০ বছর আগে হিমালয়ের কোলে হারিয়ে যাওয়া ভারতীয় বিমানবাহিনীর এক জওয়ানের মৃতদেহ মিলল হিমাচল প্রদেশে চন্দ্রভাগা-১৩ নম্বর শৃঙ্গে। পাওয়া গেল রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া বিমানবাহিনীর ‘এএন-১২ বিএল-৫৩৪’ নম্বর বিমানটির কিছু টুকরোটাকরাও।

৯৮ জন জওয়ানকে নিয়ে চণ্ডীগড় থেকে লেহ্‌তে যাওয়ার পথে ১৯৬৮ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি রহস্যজনক ভাবে হারিয়ে যায় বিমানবাহিনীর ওই বিমান। ইন্ডিয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ফাউন্ডেশনের পর্বতারোহীরা গত ১ জুলাই জওয়ানের মৃতদেহ ও ভেঙে পড়া বিমানটির টুকরোটাকরার হদিশ পান।

 

বাহিনীর একটি সূত্র জানাচ্ছেন, রেকর্ড ঘেঁটে দেখা যাচ্ছে, বিমানটির লেহ্‌তে নামার কথা থাকলেও খারাপ আবহাওয়ার জন্য কন্ট্রোল রুম থেকে বিমানটিকে ফিরে আসার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু তার কিছু ক্ষণের মধ্যেই গ্রাউন্ড কন্ট্রোলের সঙ্গে যাবতীয় যোগাযোগ ছিন্ন হয়ে যায় বিমানটির। কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে তার শেষ যোগাযোগ হয়েছিল যে সময়ে, তখন বিমানটি চণ্ডীগড়ে ফিরে আসার লক্ষ্যে উড়ছিল রোহতক গিরিপথের ওপর দিয়ে। তার পর মাসের পর মাস ধরে অভিযান চালিয়েও বিমানটির কোনও জওয়ানের দেহাবশেষ বা হারিয়ে যাওয়া বিমানটির কোনও অংশেরই খোঁজ মেলেনি।

আরও পড়ুন- স্বপ্নের উড়ান! চা বিক্রেতার মেয়ে যুদ্ধবিমানের পাইলট​

আরও পড়ুন- কাশ্মীরে হত বায়ুসেনার ‘গরুড়’ কম্যান্ডো, খতম ৫ জঙ্গি​

ওই বিমানে থাকা এক জওয়ানের মৃতদেহের প্রথম খোঁজ পান পর্বতারোহীরা, ২০০৩ সালে। পরে জানা যায়, ওই দেহটি ভারতীয় সেনাবাহিনীর জওয়ান বেলি রামের। তার পর থেকেই বিমানবাহিনীর হারিয়ে যাওয়া ওই বিমানের খোঁজে শুরু হয় ফের তল্লাশি। এও জানা যায়, বিমানটি ভেঙে পড়েছিল ডাক্কা গ্লেসিয়ারে পর্বতারোহীদের একটি বেস ক্যাম্পে।