বেগার শ্রমিক উদ্ধারে আগেই খবরে এসেছে তামিলনাড়ু। এ বার চেন্নাই শহরের উপকণ্ঠে পুলিশ ও মানবাধিকার সংগঠনের যৌথ অভিযানে উদ্ধার হল বাংলা থেকে কাজ করতে যাওয়া ৬১ জন শিশু শ্রমিক, যাদের বাঁধা মজদুর হিসেবে বেগার খাটানো হচ্ছিল গয়না তৈরির কারখানায়। মোট পাঁচটি কারখানা থেকে শুক্রবার ভোররাতে উদ্ধার হওয়া ওই ১৬ জন নাবালককে চেন্নাইয়ের রয়াপুরমে সরকারি হোমে পাঠানো হয়েছে।

শিশু শ্রমিকদের বেগার খাটানো হচ্ছে বলে খবর পেয়ে চেন্নাইয়ের কাছে কোন্ডিতপ্পে এবং ওয়াল ট্যাক্স রোডের পাঁচটি কারখানায় একসঙ্গে হানা দিয়েছিল পুলিশ। মানবাধিকার সংগঠন আইজেএম-এর সাহায্য নিয়ে শিশু ও মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধ দমন সংক্রান্ত চেন্নাই পুলিশের বিশেষ শাখা ওই অভিযান চালায়। চেন্নাইয়ের অতিরিক্ত ডেপুটি কমিশনার পি ম্যাগলিনার বক্তব্য, ‘‘উদ্ধার হওয়া বাচ্চাদের সকলেরই বয়স সম্ভবত ১৬-র কম। গয়না তৈরির নানা ধরনের কাজে তাদের খাটানো হচ্ছিল। শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর বিভিন্ন রায়ায়নিক নিয়ে সকাল ১০টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত তাদের কাজ করানো হত।’’ অভিযান চালাতে গিয়ে উদ্ধারকারীরা দেখেছেন, কয়েকটি কারখানায় শিশুদের কাজ করানোর জায়গায় সিসিটিভি লাগানো আছে। যাতে তারা পালাতে না পারে! কারখানার মালিকেরা অবশ্য এখনও ধরা পড়েননি।

তামিলনাড়ুর রাজস্ব দফতর এবং পুলিশ সূত্রের বক্তব্য, উদ্ধার হওয়া শিশুদের প্রথমে হোমে রেখে তার পরে নিয়মমাফিক পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে। স্কুলেও পাঠানো হবে তাদের। বাংলার কোথায় তাদের বাড়ি, শিশুরা এখনও তা জানাতে পারেনি। পরিবারের খোঁজ পাওয়া গেলে তাদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হবে।