তিন তালাককে ফৌজদারী অপরাধ হিসাবে মান্যতা দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। এখন শুধু বিলটি সংসদে পাশের অপেক্ষা।

শুক্রবার থেকে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরু হয়েছে। তাই সরকার চাইছে এই অধিবেশনেই এই বিলটি পাশ করিয়ে নিতে। নতুন এই প্রস্তাবিত বিলে বলা হয়েছে, কেউ যদি তিন তালাক আইন ভাঙেন তা হলে তাঁর তিন বছর জেল হতে পারে।

তাত্ক্ষণিক তিন তালাক প্রথা অসাংবিধানিক। গত অগস্টেই ঐতিহাসিক রায় দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু তার পরেও হোয়াট‌্সঅ্যাপ বা স্কাইপিতে তিন তালাকের ঘটনা সামনে এসেছে। তাই সরকার আইন করে এই প্রথা বন্ধ করতে উদ্যোগী হয়।

আরও পড়ুন: জেলে মুক্ত হাওয়া বইয়ে দেশের পথে ‘বন্দি’ ওজা

অবসর নেওয়াই কাজ এখন, জানালেন সনিয়া

তিন তালাক ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপের বিষয় নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। এমনকী, সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা জমা দিয়ে তিন তালাক প্রথায় আদালতের হস্তক্ষেপ ঠেকানোর শেষ চেষ্টা করেছিল অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড (এআইএমপিএলবি)। তিন তালাক প্রথার প্রয়োগ মুসলিমদের মধ্যে এমনিতেই কমে এসেছে বলে মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের তরফে আইনজীবী কপিল সিব্বল আদালতে দাবি করেছিলেন। আদালত এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করলে হিতে বিপরীত হতে পারে বলে সিব্বল আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। যদিও সে সব আশঙ্কা উড়িয়ে সেই ঐতিহাসিক রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট।