বিমানবন্দরে পৌঁছনোর পর করা হল তল্লাশি। বিমানে ওঠার মুখেও পেলেন না ভিআইপি গাড়ির সুবিধা। এক জন সাধারণ যাত্র্রীর মতোই বাসে চড়ে যেতে হল বিমানের কাছে। জেড প্লাস সুরক্ষা বলয়ের সুবিধা থাকলেও এমনটা ঘটল অন্ধ্রপ্রদেশের সদ্য প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডুর সঙ্গে। শুক্রবার অন্ধ্রপ্রদেশের গন্নবরমে বিজয়ওয়াড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ভিআইপি হিসাবে কোনও ছাড়ই পেলেন না তিনি। এ নিয়ে নিন্দায় সরব হয়েছে চন্দ্রবাবুর দল তেলুগু দেশম পার্টি (টিডিপি)। তবে জেড প্লাস সুরক্ষার রক্ষাকবচ থাকলেও কেন তাঁর সঙ্গে  সাধারণ যাত্রীর মতো ব্যবহার করা হল, তা নিয়ে কোনও সদুত্তর দেয়নি অন্ধ্রপ্রদেশ প্রশাসন।

শুক্রবার বিমানবন্দরে পৌঁছনোর পর চন্দ্রবাবুকে জানানো হয়, নিয়মমাফিক অন্যান্য যাত্রীর মতো তাঁকে বিমানবন্দরের সিকিউরিটি চেকিংয়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া সে ছবিতে দেখা যায়, বিমানবন্দরের এক নিরাপত্তারক্ষী তাঁর তল্লাশি করছেন। এতেই শেষ নয়। বিমানের পথে যাওয়ার জন্য  কোনও ভিআইপি গাড়ির বন্দোবস্ত ছিল না। ফলে বিমানবন্দরের বাসে চেপেই বিমানে ওঠেন তিনি।

২০০৩-এ তিরুপতির আলিপিরিতে তাঁর উপর মাওবাদী হামলার পর থেকেই চন্দ্রবাবুকে জেড প্লাস ক্যাটেগরি সুরক্ষা দেওয়া হয়। সব সময়ের জন্য তাঁর সঙ্গে ২৩ জন সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী ও এসকর্ট গাড়ি থাকার কথা। সাধারণত, কোনও প্রোটোকল থাকলে বা নিরাপত্তার খাতিরে বিমানবন্দরে তা শিথিল করা হয়। তবে শুক্রবার বিমানবন্দরে সে সুবিধা কেন পেলেন না চন্দ্রবাবু, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

আরও পড়ুন: নবান্নে যাব না, মুখ্যমন্ত্রী এখানে আসুন, বৈঠক শেষে জানিয়ে দিলেন অনড় জুনিয়র ডাক্তাররা

আরও পড়ুন: আহত পরিবহকে দেখতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েও মত পাল্টালেন মমতা! যাবেন চন্দ্রিমা ও স্বাস্থ্যসচিব​

আরও পড়ুন: ‘অসত্ উদ্দেশ্যে ডাক্তার আন্দোলনে বাইরের লোক’, বহিরাগত বিতর্কে এ বার শান্তনু সেন

আরও পড়ুন: বোনের বিয়েতে ছুটি দেননি বিভাগীয় প্রধান, আত্মহত্যা ডাক্তারি পড়ুয়ার

আরও পড়ুন: অভিমুখ বদলে ফের গুজরাতের দিকে বায়ু? কেন্দ্র সতর্ক করলেও মানতে নারাজ রাজ্য

গোটা ঘটনায় কার্যত দু’ভাগ নেটিজেনরা। এক দলের মতে, চন্দ্রবাবুর মতো এক জন প্রবীণ রাজনৈতিক নেতার এই ব্যবহার প্রাপ্য নয়। অন্য দলের মতে, চন্দ্রবাবু আর অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী নন। ফলে তাঁর সঙ্গে অন্যান্য যাত্রীর মতোই ব্যবহার করা উচিত। যদিও টিডিপি-র অভিযোগ, রাজনৈতিক ভাবে উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়েই চন্দ্রবাবুর সঙ্গে এমনটা করেছে বিজেপি এবং ক্ষমতাসীন ওয়াইএসআর কংগ্রেস পার্টি (ওয়াইএসআরসিপি)। অবশ্য এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি স্বয়ং চন্দ্রবাবু নায়ডু। মুখ খোলেনি ওয়াই এস জগন্মোহন রেড্ডির সরকারও।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদেরYouTube Channel - এ।