রাজনীতিকদের খেলায় রোজ জাত বদলে যাচ্ছিল হনুমানের। এ বার নিজেই খেলোয়াড় হয়ে গেল হনুমান। এক খেলোয়াড়ের দৌলতে।

হনুমানের জাত-বিচার করাটা পছন্দ হয়নি এক সময়ের আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেটার চেতন চৌহানের। তাঁর মতে, ‘‘হনুমানজি খেলোয়াড় ছিলেন।’’ নিজে খেলোয়াড় বলেই সম্ভবত হনুমানের দৈহিক গঠন নজর কেড়েছে চেতনের। তাই বলেছেন, ‘‘হনুমানজির মাংসপেশি দেখেছেন? শত্রুদের সঙ্গে কুস্তি লড়তেন হনুমানজি। আমার তো মনে হয়, দেশের সব খেলোয়াড়েরই ওঁকে পুজো করা উচিত। ওঁর মতো শক্তি ও ক্ষমতা অর্জনের জন্য। জয়ী হওয়ার জন্য। জাত-বিচার করা হয় বলেই খেলোয়াড়রা ওঁকে পুজো করেন না। সাধুর কোনও জাত হয় না। হনুমানজিকে আমি ঈশ্বর বলে মনে করি। ওঁর জাত-বিচার করাটা আমার একেবারেই পছন্দ নয়।’’

গত নভেম্বরে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোটের প্রচারের সময় থেকেই হনুমানের জাত-বিচার শুরু হয়। তার আগে অবশ্য রামের পরম ভক্ত হওয়ার সুবাদে হনুমানকে ‘হিন্দু’ বলেই ধরে নিয়েছিলেন হিন্দুবাদীরা।

আরও পড়ুন- জাত-বিচার চলছেই, হনুমান এ বার হলেন জাঠ!​

আরও পড়ুন- হনুমান আসলে মুসলিম! বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি নেতার​

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ গত নভেম্বরে মধ্যপ্রদেশে ভোট প্রচারে গিয়ে বলেন, বনবাসী হনুমান দলিত ছিলেন, তাঁরই মতো। তার পর বিভিন্ন রাজনীতিকের মুখে মুখে হনুমানের জাত কখনও হয় জৈন, কখনও উপজাতি বা মুসলিম, আবার কখনও ‘হনু’ হয়ে পড়ে জাঠ।

এ বার জাতপাতের সীমারেখা ছাড়িয়ে হনুমান হয়ে গেল খেলোয়াড়ও!