• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আদানিকে সুবিধা, অভিযোগ কংগ্রেসের

Goutam Adani
গৌতম আদানি

রাফাল-চুক্তিতে অনিল অম্বানীকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার জন্য নরেন্দ্র মোদীর দিকে আঙুল তুলেছেন রাহুল গাঁধী। এবার নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত আরেক শিল্পপতি গৌতম আদানিকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলল কংগ্রেস।

কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশের অভিযোগ, আদানি গোষ্ঠী বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য কয়লা আমদানিতে ২৯ হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি করেছে। ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা কয়লার দাম ২৯ হাজার কোটি টাকা দাম বেশি দেখানো হয়েছে। এখন সেই কয়লার খরচ বেশি দেখিয়ে গুজরাত, মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, পঞ্জাব ও হরিয়ানায় বিদ্যুতের মাসুল বাড়ানোর দাবি তুলছে আদানি গোষ্ঠী।

আজ কংগ্রেসের সদর দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন করে রমেশ বলেন, ‘‘সুপ্রিম কোর্ট এই দাবি খারিজ করে দিয়েছিল। তা সত্বেও মোদী সরকারের নির্দেশে গুজরাত সরকার এখন বিদ্যুৎ মাসুল বাড়ানোর দাবি মেনে নিচ্ছে। এর ফলে আদানি, টাটা ও এসার গোষ্ঠীর আগামী ৩০ বছরে ১ লক্ষ ৩০ হাজার কোটি টাকার মুনাফা হবে। সাধারণ মানুষকে তার বোঝা বইতে হবে। সরকারি ব্যাঙ্কের উপরেও এর দায় চাপবে। এ হল মুনাফার বেসরকারিকরণ, লোকসানের রাষ্ট্রায়ত্তকরণ।’’

কংগ্রেসের যুক্তি, অর্থ মন্ত্রকের অধীন রাজস্ব গোয়েন্দা দফতরই এই দুর্নীতির খোঁজ পেয়েছে। কয়লা আমদানি সংক্রান্ত নথি চেয়ে সিঙ্গাপুরকে ‘লেটার রোগেটরি’ বা আইনি চিঠিও পাঠানো হয়েছে। প্রশান্ত ভূষণ এর বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টে মামলা করেছেন। কিন্তু সমস্ত নথি রয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার সিঙ্গাপুর শাখায়। রমেশের দাবি, ২০১৬-র ২০ মে অর্থসচিব হাসমুখ আঢ়িয়া স্টেট ব্যাঙ্কের তৎকালীন চেয়ারম্যান অরুন্ধতী ভট্টাচার্যকে চিঠি লিখে এই নথি চেয়েছিলেন। অরুন্ধতী জবাবে জানান, সিঙ্গাপুর আইনে নথি দেওয়া যাবে না। আদানি গোষ্ঠী সিঙ্গাপুর আদালতে রাজস্ব গোয়েন্দা শাখাকে এই নথির হস্তান্তরের বিরুদ্ধে আর্জি জানালে তা খারিজ হয়ে যায়। এবার আদানি গোষ্ঠী বম্বে হাইকোর্টে একই দাবিতে আর্জি জানিয়েছে।

রমেশ বলেন, ‘‘বম্বে হাইকোর্টে বুধবার এই মামলার শুনানি। আমরা চাই, গোটা মামলার তদন্ত হোক। কিন্তু তার আগে বম্বে হাইকোর্টে বিশেষ আইনজীবী দাঁড় করিয়ে আদানি গোষ্ঠীর বিরোধিতা করুক মোদী সরকার। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ওঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েই বলছি, উনি ‘সাফ নিয়ত’-এর দাবি করেন। এবার রাজস্ব গোয়েন্দা শাখার দাবি মেনে বিশেষ আইনজীবী দাঁড় করিয়ে তার প্রমাণ দিন।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন