সঙ্ঘ পরিবার আয়োজিত শিকাগোর বিশ্ব হিন্দু কংগ্রেসে যোগ দিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করলেন দেশের উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু। রাজনৈতিক সূত্রের বক্তব্য, ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি যখন উগ্র হিন্দুত্বের পথেই ক্ষমতায় ফিরে আসার পরিকল্পনা নিয়েছে, তখন আমেরিকার সঙ্ঘের মঞ্চ থেকে বেঙ্কাইয়ার বক্তৃতায় বেশ কিছু প্রশ্ন উঠেছে।

কংগ্রেস এবং বিরোধী দলগুলির প্রশ্ন, উপরাষ্ট্রপতির পদটি সাংবিধানিক ভাবে নিরপেক্ষতার প্রতীক। সেই অবস্থান থেকে সরে এসে খোলাখুলি একটি বিশেষ ধর্মের প্রচার ও প্রসার অনুষ্ঠানে বেঙ্কাইয়ার হাজির থাকাটা আদৌ কাঙ্ক্ষিত নয়।

ভারতীয় সময়ের হিসেবে গত কাল গভীর রাতে হিন্দু কংগ্রেসের মঞ্চে দাঁড়িয়ে ওই বক্তৃতা দিয়েছেন উপরাষ্ট্রপতি। তার আগে শিকাগোয় অনাবাসী তেলুগুদের একটি অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদীর ভূয়সী প্রশংসা করেন  বেঙ্কাইয়া। তাঁর কথায়, ‘‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে ভারত তুমুল প্রগতির পথে হাঁটছে। গোটা বিশ্বের অর্থনীতির গতি যখন মন্থর হয়ে পড়েছে তখন একমাত্র ভারতই এগিয়ে চলেছে। গোটা বিশ্ব এখন ভারতের দিকে তাকিয়ে।’’

নিজের মন্ত্রী-জীবনের স্মৃতি টেনে বেঙ্কাইয়ার দাবি, বিশ্বের সব প্রধান দেশই এই মুহূর্তে ভারতে বিনিয়োগ করার জন্য মুখিয়ে রয়েছে। উপরাষ্ট্রপতির কথায়, ‘‘কিছু দিন আগেও আমি নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ছিলাম। সে সময় অন্তত ৪০ জন রাষ্ট্রদূত আমার সঙ্গে দেখা করেছেন। সকলেই আমাদের দেশে লগ্নি করতে আগ্রহী।’’

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে উপরাষ্ট্রপতি  যে অনুষ্ঠানে হিন্দুত্বকে তুলে ধরেছেন তার উদ্বোধন করে মার্কিন কংগ্রেসের ভারতীয় বংশোদ্ভূত সদস্য রাজা কৃষ্ণমূর্তি সহিষ্ণুতার বার্তাই দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘‘আমি ঠিকই করে নিয়েছিলাম যে এখানে আসব। একটিমাত্র হিন্দুত্বের ধারণাই আমার রয়েছে। যে হিন্দুত্ব সমস্ত মানুষকে স্বাগত জানায়, কে কোন ধর্মে বিশ্বাসী তা দেখে তার পর কাছে টানে না। অন্য যে কোনও ধাঁচের হিন্দুত্ব আমার কাছে বর্জনীয়।’’