• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

জামাতকে দুষেও অস্বস্তি কেন্দ্রের

Press
নিরাপদ দূরত্বে: দিল্লিতে নিজামুদ্দিনে কর্মরত ডাক্তারদের বুধবার এ ভাবেই সাক্ষাৎকার নিলেন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা। পিটিআই

বিকেলে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের যুগ্মসচিব লব আগরওয়াল জানিয়েছিলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে ৩৮৬ জনের করোনা-সংক্রমণ ধরা পড়েছে। রাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ওয়েবসাইটে সংখ্যাটা আরও ১৯৭ বেড়ে গেল। 

অর্থাৎ, সাড়ে পাঁচশোরও বেশি নতুন সংক্রমণ! 

মন্ত্রকের হিসেবে দেশে মোট সংক্রমণ ১৮৩৪টি। সেরে উঠেছেন ১৪৩ জন। মারা গিয়েছেন ৪১ জন। যদিও রাজ্যভিত্তিক হিসেবের নিরিখে সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, দেশে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ১৯৪৯, মৃত ৫৯ জন। মহারাষ্ট্রে আজ অন্তত ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে একটি মৃত্যু মুম্বইয়ের ধারাভিতে। এশিয়ার বৃহত্তম এই বস্তিতে প্রায় ১৫ লক্ষ মানুষ থাকেন। ফলে প্রশাসনের ঘুম উড়েছে। উত্তরপ্রদেশে দু'জন মারা গিয়েছেন। সেই রাজ্যে মৃত্যু এই প্রথম। 

এক দিনে এই বিপুল সংক্রমণের জন্য দিল্লির নিজামুদ্দিন এলাকার ‘তবলিগ-ই-জামাত’-কে দায়ী করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। দেশজুড়ে তল্লাশি চালিয়ে ওই জামাতে যোগ দেওয়া প্রায় ৬০০০ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। কেন্দ্রের বক্তব্য, নতুন আক্রান্তদের একটা বড় অংশ হয় ওই জামাতে ছিলেন। নয়তো যাঁরা গিয়েছিলেন, তাঁদের সংস্পর্শে এসেছেন। আগরওয়াল বলেন, "এই ধরনের বৃদ্ধি অপ্রত্যাশিত। এর সঙ্গে সাধারণ সংক্রমণের হারের তুলনা করা ঠিক নয়। জামাতের সদস্যেরা যখন দেশে ঘুরেছেন, তাঁদের মাধ্যমে সংক্রমণ ছড়িয়েছে।" এই সূত্রেই তিনি জানান, আজ জম্মু-কাশ্মীরে ২৩ জন, তামিলনাড়ুতে ৬৫ জনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। দিল্লির নিজামুদ্দিন এলাকা থেকে ২৩৬১ জনকে সরানো হয়েছে। ৬১৭ জন হাসপাতালে। এঁদের মধ্যে এক জন আজ রাজীব গাঁধী সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের ছ'তলা থেকে ঝাঁপ দেওয়ার চেষ্টা করেন। দিল্লিতে আজ ৫৩টি নতুন সংক্রমণের সঙ্গে নিজামুদ্দিনের যোগ রয়েছে বলে সূত্রের দাবি। প্রায় ১৬০ জন জামাতিকে দিল্লির তুঘলকাবাদে রেলের একটি এলাকায় কোয়রান্টিন করা হয়েছে। উত্তর রেলের মুখপাত্র দীপক কুমার বলেন, "ওঁরা ডাক্তার ও কর্মীদের থুতু দিয়েছেন।"

এ সবে অবশ্য অস্বস্তি কাটছে না স্বাস্থ্য মন্ত্রকের। বিরোধীদের বরাবরের অভিযোগ, তথ্য চাপা দিচ্ছে কেন্দ্র। আজ থেকে করোনা নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের সাংবাদিক বৈঠকে শুধুমাত্র দূরদর্শন ও মুষ্টিমেয় দু'একটি সংবাদ সংস্থার প্রতিনিধিদেরই ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। প্রশ্ন নেওয়া হচ্ছে মাত্র চারটি। কর্তাদের যুক্তি, সংক্রমণ রুখতেই এই সিদ্ধান্ত। গত কালই সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্র আর্জি জানিয়েছিল, সরকারের থেকে তথ্য যাচাইয়ের পরেই যাতে করোনা সংক্রান্ত খবর করা হয়, সেই মর্মে সংবাদমাধ্যমগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হোক। কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের মতে, অর্থনীতি-বেকারত্বের মতোই করোনা নিয়ে অস্বস্তিকর প্রশ্নগুলো এড়াতে চাইছে কেন্দ্র। 

ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ ফোনে কথা বলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে। এই রাজ্যে সংক্রমণের সংখ্যা ৩৩৫। মৃত অন্তত ১৭। সূত্রের দাবি, আজ মারা যাওয়া ৭ জনের মধ্যে ৬ জনই মুম্বইয়ের। ধারাভিতে ৫৬ বছরের যে ব্যক্তি মারা যান, তাঁর বাড়িটির সমস্ত বাসিন্দার করোনা-পরীক্ষা করা হয়েছে। 

উত্তরপ্রদেশে মৃত দু'জনের মধ্যে এক জনের মহারাষ্ট্র-যোগ ছিল। মেরঠের বাসিন্দা, ৭২ বছরের ওই রোগীর জামাই গত ১৯ মার্চ অমরাবতী থেকে শ্বশুরবাড়িতে এসেছিলেন। অন্য রোগীর মৃত্যু হয় গোরক্ষপুরের বিআরডি মেডিক্যাল কলেজে। বস্তী জেলার ২৫ বছরের এই যুবক লিভার ও কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। 

দিল্লির সফদরজঙ্গ হাসপাতালের দুই আবাসিক চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সফদরজঙ্গে করোনার চিকিৎসা করছে যে দলটি, এক জন সেই দলেরই সদস্য। অন্য জন সম্প্রতি বিদেশ থেকে ফেরেন। দু'জনের সংস্পর্শে এসেছিলেন, এমন সকলের দেহেই আপাতত করোনার চিহ্ন মেলেনি। দিল্লির সর্দার বল্লভভাই পটেল হাসপাতালের এক চিকিৎসকও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল জানিয়েছেন, করোনা-রোগীদের চিকিৎসা করতে গিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের কারও মৃত্যু হলে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে, যেমন নিহত সেনাদের ক্ষেত্রে দেওয়া হয়। কেজরীবাল বলেন, "আপনাদের অবদান সেনাদের থেকে কম নয়।"

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন