• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ডাক্তারের অভাবে সঙ্কট কাছাড়ে

Coronavirus
—ফাইল চিত্র।

কোভিডের প্রকোপে ডাক্তার পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে অসমের কাছাড় জেলায় বিনা চিকিৎসায় বাড়িতে মানুষ মারা যাচ্ছেন বলে অভিযোগ৷ শিলচর মেডিক্যাল কলেজের সুপার অভিজিৎ স্বামী জানান, আগে বাড়ি বা মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়ার পথে সপ্তাহে এক জনের মৃত্যু হত৷ করোনা সঙ্কটের শুরুতে তা বেড়ে প্রতি দিন একটা হয়৷ এখন সংখ্যাটা দৈনিক ৪-৫ জন৷

কেন আচমকা এতটা বেড়ে গেল? শিলচর মেডিক্যাল কলেজের সুপার অভিজিৎ স্বামী জানান, একে ডাক্তারের সঙ্কট, তার উপরে করোনা সঙ্কট৷ সরকারি নির্দেশেই চাকরিরত ডাক্তাররা এখন আর নিজেদের চেম্বার বা নার্সিং হোমে রোগী দেখতে পারছেন না৷ ফলে বাইরে কোথাও ডাক্তার দেখানোর ব্যাপার, বলতে গেলে নেই। 

আর অসুস্থ হয়েই যে মানুষ সরকারি হাসপাতাল বা মেডিক্যাল কলেজে চলে যাবেন, তাও করোনার ফলে সম্ভব নয়৷ কারণ হাসপাতালে গেলেই এখন কোভিড টেস্ট বাধ্যতামূলক৷ 

বাড়ি বা রাস্তায় মৃতদের সংখ্যা বেড়ে চলায় শিলচর মেডিক্যাল কলেজে অন্য ধরনের কাজ বেড়ে গিয়েছে৷ স্বামী বলেন, মৃত অবস্থায় কাউকে হাসপাতালে আনলে তাঁর দেহের ময়নাতদন্ত করাতে হয়৷ আগে এমন ময়নাতদন্ত সপ্তাহে এক বার করতে হলে এখন দৈনিক একাধিক বার করতে হচ্ছে৷ 

কিন্তু চিকিৎসক সঙ্কট থেকে বাঁচার উপায় কী? কাছাড়ের অতিরিক্ত জেলাশাসক সুমিত সাত্তায়ান বলেন, করোনার ভয়ে চিকিৎসাকে এড়িয়ে চলে লাভ হবে না৷ সামান্য সমস্যাতেই কোভিড টেস্ট করিয়ে নিলে চিকিৎসা দ্রুত ও সহজতর হয়৷

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন