• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দুই ছাত্রনেতার পরে পুলিশের নিশানা খালিদ

Umar Khalid
জেএনইউ-র প্রাক্তনী উমর খালিদ।

জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার দুই পড়ুয়া মীরন হায়দর এবং সফুরা জ়ারগরের পরে এ বার জেএনইউ-র প্রাক্তনী উমর খালিদ।

দিল্লির সাম্প্রতিক সংঘর্ষের পিছনে ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে প্রথম দু’জনকে আগেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নাকচ হয়েছে তাঁদের জামিনের আর্জি। বন্দি করা হয়েছে বেআইনি কার্যকলাপ প্রতিরোধী আইনে (ইউএপিএ)। তার পরে এ বার সংঘর্ষের পিছনে ‘খালিদের ভূমিকা’-ও খতিয়ে দেখছে দিল্লি পুলিশ। ২০১৬ সালে জেএনইউয়ে বিতর্কিত ‘ভারত তেরে টুকড়ে হোঙ্গে’ স্লোগানের ঘটনায় কানহাইয়া কুমারের সঙ্গে উঠে এসেছিল খালিদের নামও।

করোনা-সংক্রমণ রুখতে এই ঘরবন্দির সময়েও দিল্লি পুলিশ যে ভাবে একের পর এক সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের নেতাদের নিশানা করছে, তার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন বহু পড়ুয়া এবং শিক্ষক। এ বিষয়ে যৌথ বিবৃতি জারি করেছে বিশিষ্ট জন, শিক্ষক এবং পড়ুয়াদের বিভিন্ন সংগঠনও। অভিযোগ, দেশে এত বড় সঙ্কটের সময়েও বিরোধী স্বর স্তব্ধ করার লক্ষ্য থেকে সরে আসেনি দিল্লি পুলিশ। বরং এই সময়ে নজর অন্য দিকে থাকায় একের পর এক সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের নেতাকে গ্রেফতার করছে তারা। 

পুলিশের পাল্টা দাবি, যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতেই এই সমস্ত গ্রেফতার। খালিদের বিরুদ্ধেই যেমন অভিযোগ রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের সময়ে দিল্লিতে গোলমাল পাকাতে সংখ্যালঘুদের রাস্তায় নামতে ডাক দেওয়ার।

দিল্লির সাম্প্রতিক সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে জামিয়ার পিএইচডি পড়ুয়া মীরন হায়দরকে জিজ্ঞাসাবাদের পরে গ্রেফতার করে পুলিশ। যিনি আবার আরজেডি-র দিল্লি শাখার যুব নেতা। তখনই অভিযোগ উঠেছিল, জামিয়া এবং শাহিনবাগে সিএএ-এনআরসি  বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মুখ হওয়ার কারণেই গ্রেফতার করা হয়েছে তাঁকে। এর পরে গ্রেফতার হন জামিয়া চত্বরে সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মুখ সফুরা জ়ারগর। জয়েন্ট কোঅর্ডিনেশন কমিটির তরফে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন তিনি। ইউএপিএ-র মতো কড়া আইনে এঁদের নামে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এখন যে উমর খালিদ একই ঘটনায় আতসকাচের তলায়, তিনিও বরাবর সরকারের চক্ষুশূল।

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন