নোটবন্দির সিদ্ধান্তের এক বছর কেটে গেল। সমস্যার সমাধান কতটা হয়েছে?

গত বছর ৮ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পর কয়েক মাস হাতে গোনা কোনও কোনও দোকান ৫০০ বা হাজার টাকার নোট নিয়েছিল। কিন্তু, বাস্তব হল, কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষণায় নাজেহাল হতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। ‘নিষিদ্ধ’ নোটের ভাঙানি দেওয়ার চাপ এড়াতে অনেকে দোকানপাটই খোলেননি কয়েক দিন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার দিন দুয়েক পর বাজারে আসে দু’হাজার টাকার নোট। পরিস্থিতি এতটাই জটিল হয়ে উঠেছিল যে, ব্যাঙ্কে গিয়ে নোট বদল করার সময় আঙুলে কালির দাগ দেওয়ার রীতি চালু হয়েছিল।

আরও পড়ুন: ডিজিটাল গ্রামে অধরা ইন্টারনেটই

সব মিলিয়ে‌ গত এক বছরে নোট বাতিলের এই সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে নানা মূল্যায়ণ হয়েছে। কিন্তু আসল কথা হল, আমজনতার দৈনন্দিন জীবনের হেনস্থার বিবরণ নাতিদীর্ঘ নয়। এক ঝলকে ফিরে দেখা যাক এক বছরের কিছু নোট-কাণ্ড: