কিছুদিন আগেই জয়পুরে এক বিজেপি নেতার ছেলে মত্ত অবস্থায় ফুটপাতে গাড়ি তুলে দিয়েছিলেন। পিষে মৃত্যু হয়েছিল এক জনের। তারপর ১৫ দিনও কাটেনি। ফের সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দিল্লিতে। এবার মদ্যপ অবস্থায় ঘুমন্ত ফুটপাথবাসীর উপর গাড়ি চালিয়ে দিলেন এক তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী। ঘটনাস্থলেই দুই মহিলার মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর জখম আরও দু’জন। গাড়ি চালক দেবেশকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাঁর কাছে ড্রাইভিং লাইসেন্সও ছিল না। রবিবার ভোরে রাজৌরি গার্ডেনের এলাকার এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। গাড়ি ও ঘটনাস্থলে ফরেন্সিক পরীক্ষা করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার ভোরের দিকে পশ্চিম বিহার এলাকা থেকে বিমানবন্দরের দিকে দ্রুতগতিতে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলেন দেবেশ। রাজৌরি গার্ডেন ফ্লাইওভারের আগে ইএসআই হাসপাতালের সামনে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন দেবেশ। গাড়ি উঠে পড়ে ফুটপাতে। সেখানে ঘুমোচ্ছিলেন চার জন। তাঁদের চাপা দিয়ে খানিকটা দূরে গিয়ে গাড়িটি থেমে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় নুরা (৫০) এবং শীলা (৪০) নামে দুই মহিলার। গুরুতর আহত মনোজ (৩৫) এহং রাম সিংহ (৫৫) তড়িঘড়ি ইএসআই হাসপাতালেই নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মনোজ সঙ্কটজনক। তবে রাম সিংহ বিপন্মুক্ত।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। সেখান থেকেই গ্রেফতার করা হয় গাড়ির চালক দেবেশকে। তিনি একটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় কাজ করেন। যদিও দেবেশ দাবি করেন, গাড়ির সামনের একটি টায়ার ফেটে যাওয়াতেই তিনি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। দিল্লির ডিসি ওয়েস্ট মণিকা ভরদ্বাজ জানিয়েছেন, দেবেশ মদ্যপ অবস্থায় থাকার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। তাঁর কাছে ড্রাইভিং লাইসেন্সও ছিল না। রাম সিংহের বয়ানের ভিত্তিতে অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা দায়ের হয়েছে।

আরও পড়ুন: লাইভ: দেশ জোড়া বন‌্ধে ভাল সাড়া, রেল-রাস্তা অবরোধে ভোগান্তি

আরও পড়ুন: সেনার অস্ত্র যাচ্ছে জঙ্গিদের হাতে, শিকড় বাংলাতেও

ঘটনার পর ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা ঘটনাস্থলে যান। নমুনা সংগ্রহের পাশাপাশি ঘটনার পুনর্নির্মাণও করেন তাঁরা। তাঁরা জানিয়েছেন, গাড়িটির সামনের দিকের একটি টায়ার ফেটে গেলেও সেটি দুর্ঘটনার আগে ফেটেছিল, নাকি দুর্ঘটনার অভিঘাতে ফেটেছে, তা এখনই বলা সম্ভব নয়।