• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ফ্যাক্স মেশিনই এখন সবচেয়ে বড় খলনায়ক উপত্যকার রাজনীতিতে!

Omar
ওমর আবদুল্লা। —ফাইল চিত্র।

একটি খারাপ ফ্যাক্স মেশিন। উপত্যকার রাজনীতিতে এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় খলনায়ক সে-ই।

ন্যাশনাল কনফারেন্স-এর নেতা ওমর আবদুল্লার দাবি, রাজভবনের ফ্যাক্স মেশিনটিই গত কাল ‘গণতন্ত্রকে হত্যা’ করেছে কাশ্মীরে। কংগ্রেসও বলছে, খারাপ ফ্যাক্স মেশিনের কারণেই অকাল নির্বাচনের মুখে জম্মু-কাশ্মীর। আর সেই ফ্যাক্স মেশিনের কার্যত মালিক যিনি, সেই জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের মতে, রাজভবনের যন্ত্রপাতি প্রায়শই খারাপ হয়। নতুন কিছু নয়।

গতকাল সন্ধ্যায় কংগ্রেস ও এনসি-র সমর্থন পেতেই সরকার গড়ার দাবি জানিয়ে রাজভবনে ফ্যাক্স করেন পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি। কিন্তু রাজ্যপাল তাঁকে ডাকার পরিবর্তে বিধানসভাই ভেঙে দেন। রাজ্যপালের দাবি, তিনি পিডিপি নেত্রীর ফ্যাক্স পাননি। মেশিনটি গন্ডগোল করেছে। পরে অবশ্য ওই ফ্যাক্স মেশিন থেকেই বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার বিষয়টি সরকারি ভাবে জানায় রাজভবন। যা দেখে ওমরের কটাক্ষ, ‘‘অদ্ভুত ফ্যাক্স মেশিন! শুধু নথি পাঠানো যায়। মেশিনে বাইরে ‌থেকে কিছু আসে না। ওই অদ্বিতীয় মেশিনটি নিয়ে তদন্ত হওয়া উচিত।’’ ঘরোয়া মহলে বিরোধী দলগুলির বক্তব্য, খারাপ ফ্যাক্স মেশিনকে অছিলা করে বিধানসভা ভাঙার যুক্তি খাড়া করছেন রাজ্যপাল।

মেহবুবার ফ্যাক্স নিয়ে দিনভর চাপানউতোর চলে। কংগ্রেসের অভিযোগ, মেহবুবার ফ্যাক্স পেয়েছেন রাজ্যপাল। ফ্যাক্স দেখেই দিল্লির নির্দেশে অগণতান্ত্রিক খেলায় নেমেছেন তিনি। আবার সত্যপাল মালিকের বক্তব্য, ‘‘কাল ইদ মিলাদের কারণে রাজভবনের অধিকাংশ কর্মী ছুটিতে ছিলেন। আমার রাঁধুনিরও ছুটি ছিল। কোনও কর্মী ফ্যাক্স মেশিনের আশেপাশে ছিলেন না।’’ 

আরও পড়ুন: ব্যপম-মৃত্যুবাড়ির দেওয়ালে নেতাদের সহাস্য পোস্টার

রাজ্যপালের সচিবালয় কিন্তু আবার এ রকম বলছে না। রাজভবন সূত্রে বলা হয়েছে, বুধবার ইদের ছুটি থাকলেও রাজভবনে স্বাভাবিক ভাবেই কাজকর্ম হয়েছে। রাজ্যপালের প্রিন্সিপ্যাল সেক্রেটারি উমঙ্গ নারুলা বলেন, ‘‘সকাল থেকেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক বা দিল্লির অন্যান্য মন্ত্রক থেকে নিয়মমাফিক চিঠি-কাগজ ফ্যাক্সে এসেছে। রাজভবনের ফ্যাক্স মেশিনগুলি স্বয়ংক্রিয়। কিন্তু মেহবুবার ফ্যাক্স পাঠানোর সময়ে কী ভাবে সমস্যা দেখা দিল, বোঝা যাচ্ছে না।’’ 

আরও পড়ুন: অনাপ-শনাপ পয়সা! কৃষক হত্যার মন্দসৌরেও উদ্বেগে থাকতে হচ্ছে কংগ্রেসকে

গতকাল মেহবুবা ফ্যাক্স মারফত সরকার গড়ার দাবি জানানোর ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই বিধানসভা ভাঙার সিদ্ধান্ত নেন রাজ্যপাল। সেটা জানানো হয় ফ্যাক্সেই। ওমরের প্রশ্ন, ‘‘অবাক বিষয় হল, সিদ্ধান্ত জানানোর সময়ে ফ্যাক্স মেশিন নিজে থেকেই ঠিক হয়ে গেল!’’ জবাবে সত্যপাল জানান, ‘‘রাজভবনের যন্ত্রপাতি মাঝেমধ্যেই বিগড়ে যায়। কখনও কখনও রাজভবনের গিজ়ারও কাজ করে না।’’ খলনায়ক তার মানে মেশিনটিই! কংগ্রেসের মণীশ তিওয়ারির কটাক্ষ, ‘‘একটি খারাপ ফ্যাক্স মেশিনের কারণে একটা রাজ্য এখন নির্বাচনের মুখে!’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন