আমেরিকার কানসাসে দক্ষিণ ভারতীয় যুবক শ্রীনিবাস কুচিভোটলার হত্যা নিয়ে যখন সে দেশে  বর্ণবিদ্বেষের প্রশ্নটি অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছে, ঠিক সেই সময়েই চার দিনের মার্কিন সফরে যাচ্ছেন বিদেশসচিব এস জয়শঙ্কর। আগামী মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে তাঁর সফর।

আমেরিকায় নতুন সরকার আসার পর এর আগে ফোনে দু’দেশের শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে কথা হয়েছে। কিন্তু ট্রাম্প জমানায় এই প্রথম সে দেশে দ্বিপাক্ষিক দৌত্য করতে ভারত থেকে কোনও শীর্ষস্তরের কূটনৈতিক কর্তা যাচ্ছেন। আলোচনা হবে দ্বিপাক্ষিক কৌশলগত সম্পর্ক এবং বাণিজ্য বিষয়ে। তা ছাড়া, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগামী মার্কিন সফরের ভিতও তৈরি হবে জয়শঙ্করের সফরে।

বিদেশ মন্ত্রক সূত্রের বক্তব্য, আলোচনায় অগ্রাধিকার পাবে আমেরিকায় বসবাসকারী ভারতীয়দের নিরাপত্তার দিকটি। ট্রাম্প জমানায় বর্ণ বিদ্বেষের মুখে পড়ে কোনও ভারতীয়ের মৃত্যুর ঘটনা এই প্রথম। অবৈধ অভিবাসী, বিশেষত মুসলিমদের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের তোপ দাগার প্রভাব নানা ভাবে মার্কিন সমাজে পড়ছে, এমনটাই ঘরোয়াভাবে আশঙ্কা করছে সাউথ ব্লক। গোটা ঘটনায় আতঙ্ক তৈরি হয়েছে আমেরিকায় বসবাসকারী ভারতীয় নাগরিকদের মধ্যে। কানসাসের ঘটনার পরে ভারতীয়দের নিরাপত্তার প্রশ্নটি নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসন কী চিন্তাভাবনা করছে, সেটা জয়শঙ্করের সফরে স্পষ্ট জানতে চাওয়া হবে। ট্রাম্প প্রশাসনের শীর্ষ পর্যায়ের নেতা কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে ভারতের অন্যতম বড় উদ্বেগের জায়গাটি অর্থাৎ মার্কিন সরকারের এইচ১বি ভিসা নীতি নিয়েও সরব হবে নয়াদিল্লি। পাশাপাশি কথা হবে আন্তর্জাতিক এবং আঞ্চলিক পরিস্থিত নিয়ে। পাকিস্তানের আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাস প্রসঙ্গটিও আলোচনায় উঠবে বলে জানিয়েছে বিদেশ মন্ত্রক।