উত্তরপ্রদেশের অমেঠীতে এ বার গণপিটুনিতে নিহত হলেন এক প্রাক্তন সেনা অফিসার। পুলিশ জানিয়েছে, শনিবার রাতে কামরাউলি থানার গোড়িয়াঁ কা পূর্বা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। আমানুল্লার ছেলে জানিয়েছেন, গত কাল রাতে বাড়িতে কেবল তাঁর বাবা-মা ছিলেন। অভিযোগ, সেই সময়ে এক দল লোক বাড়িতে ঢুকে আমানুল্লাকে মারধর করে। বছর চৌষট্টির আমানুল্লার মাথায় আততায়ীরা লাঠি দিয়ে আঘাত করে। ফলে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। একদা গাঁধী পরিবারের গড় হিসেবে পরিচিত অমেঠীতে গত লোকসভা ভোটে বিজেপির স্মৃতি ইরানির কাছে হেরেছেন রাহুল গাঁধী।

রবিবার এই গণপিটুনির ঘটনা নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্যের বিজেপি সরকারকে কটাক্ষ করে প্রিয়ঙ্কার বক্তব্য, ‘‘উত্তরপ্রদেশের আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে। অপরাধ ঘটে কিন্তু বিজেপি সরকার তা ধামাচাপা দেওয়া ছাড়া কিছুই করে না। আমার বাড়ি অমেঠীতেই এমন ঘটনা ঘটেছে। বিজেপি সরকার কী কিছু করবে না ধামাচাপা দেবে?’’ সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লেখা চিঠিতে গণপিটুনির অপরাধকে জামিন অযোগ্য অপরাধের তকমা দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্ট জনেদের একাংশ। গণপিটুনি রুখতে একগুচ্ছ নির্দেশিকা দিয়েছিল শীর্ষ আদালত। তা মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ ওঠায় সম্প্রতি কেন্দ্র ও রাজ্যগুলিকে নোটিস পাঠিয়েছে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের বেঞ্চ।