তামিলনাড়ুর অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী দর্শিনী। বরাবরই বিজ্ঞানের খুঁটিনাটি ব্যাপারে আগ্রহ তার। সেই আগ্রহই যেন বাড়িয়ে তুলেছিলেন তার শিক্ষক শ্রবণন। সেই ছোট্ট দর্শিনীই এ বার এমন একটি আবিষ্কার করে ফেলেছে, যার ফলে তাকে বাহবা দিয়ে ‘ধন্যবাদ’ মেসেজ পাঠাল গুগলও।

তামিলনাড়ুর তিরুপুর অঞ্চলের এই ছাত্রী আবিষ্কার করে ফেলেছে একটি কয়েন ভেন্ডিং মেশিন। অর্থাৎ এমন একটি মেশিন যেখান থেকে বেরিয়ে আসবে কয়েন, ঠিক যেমন করে এটিএম-এর মধ্যে থেকে বেরিয়ে আসে টাকা। আর তার এই আবিষ্কারের জন্যই আন্তর্জাতিক সংস্থা গুগলের থেকে প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছে সে।

কিন্তু কী করে ছোট্ট দর্শিনীর এই প্রতিভা সামনে এল সকলের? তিরুপুর অঞ্চলেরই একটি সরকারি স্কুলের ছাত্রী দর্শিনী। সেখান থেকেই সে যোগদান করেছিল গুগলের বিজ্ঞান এবং কারিগরি বিষয়ক অনলাইন পরীক্ষায়। এই পরীক্ষায় যোগদান করতে পারে যে কোনও জায়গার যে কোনও বয়সের শিক্ষার্থীরা। গুগলের প্রচেষ্টা থাকে এর মাধ্যমে পড়ুয়াদের উৎসাহ দেওয়া, যাতে তাদের মধ্যে উদ্ভাবনী ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

আরও পড়ুন: পাক কবজায় উইং কমান্ডার অভিনন্দন, ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি দেশ জুড়ে

দর্শিনীর শিক্ষক এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার জন্য ক্রমাগত উৎসাহিত করতে থাকে তাকে। তাঁর সাহায্যেই দর্শিনী তার আবিষ্কারের বিবরণ পাঠিয়ে দেয় গুগলের কাছে। ছোট্ট দর্শিনীর সেই কাজেরই স্বীকৃতি মিলল এ বার গুগলের তরফে। দর্শিনীকে একটি সার্টিফিকেট দিয়েছে গুগল। সঙ্গেই আলাদা করে ধন্যবাদ জানাতেও ভোলেনি তাকে। গুগলের তরফ থেকে সেই ‘থ্যাঙ্ক ইউ’ মেসেজ পেয়ে বেজায় খুশি দর্শিনীও। আগামী জীবনে আরও এরকম নতুন নতুন উদ্ভাবন করতে সেই মেসেজই এখন অনুপ্রেরণা দর্শিনীর কাছে।

আরও পড়ুন: ‘যুদ্ধ নয়’, সরব হচ্ছে কাঁটাতারের দুই প্রান্তেরই কন্ঠস্বর