সরাইকেলা খরসওয়ার পাঁচ দিনের মধ্যে ফের মাওবাদী হামলা হল ঝাড়খণ্ডে। এ বার দুমকার রানিক্ষেত্র থানা এলাকার কাঠালিয়া গ্রামে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মাওবাদীদের সঙ্গে সংঘর্ষে নীরজ ছেত্রী নামে সশস্ত্র সীমা বল (এসএসবি)-এর এক জওয়ান নিহত হয়েছেন। তাঁর বাড়ি অসমে। আহত হয়েছেন ওই বাহিনীরই ৪ জন জওয়ান। তাঁদের এক জন, রাজেশ কুমার রাইয়ের আঘাত গুরুতর। পেটে গুলি লেগেছে তাঁর। পুলিশের দাবি, গুলিতে অন্তত পাঁচ জন মাওবাদীও জখম হয়েছে। তাদের সন্ধানে জঙ্গলে দিনভর তল্লাশি চালানো হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, দুমকার রানিক্ষেত্রের কাঠালিয়া গ্রামের আশপাশে মাওবাদীরা জড়ো হয়েছে বলে তাদের কাছে খবর এসেছিল। দুমকার পুলিশ সুপার ওয়াই এস রমেশ জানান, কোনও নাশকতার উদ্দেশ্যে ওরা জড়ো হয়েছে বলে খবর আসে তাঁদের কাছে। রবিবার সকালে ওই এলাকায় যৌথ তল্লাশি অভিযান শুরু করে ঝাড়খণ্ড পুলিশ এবং এসএসবি-র যৌথ দল।

পুলিশ জানিয়েছে, তল্লাশির সময়ে হঠাৎ জঙ্গলের মধ্যে পুলিশের গাড়ির সামনে চলে এসে মাওবাদীরা গুলিবৃষ্টি শুরু করে। পাল্টা গুলি
চালান জওয়ানরাও। গুলিযুদ্ধে
গুরুতর জখম হন নীরজ। তাঁকে দুমকা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে মৃত ঘোষণা করা হয়। বাকিদের মধ্যে রাজেশ কুমারকে হেলিকপ্টারে রাঁচীর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

লোকসভার ভোট মিটতে না-মিটতেই পরপর দু’বার মাওবাদী হামলায় সর্তক ঝাড়খণ্ড পুলিশ। লোকসভা ভোট শুরুর কিছু দিন আগে পলামুতে বিজেপির একটি কার্যালয়ে মাওবাদীরা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল। ভোট চলাকালীন হামলা না-হলেও ভোটের পরে ফের পরপর মাওবাদী হামলা হল। ঝাড়খণ্ডের পুলিশকর্তারা জানাচ্ছেন, রাজ্য জুড়ে মাওবাদী অধ্যুষিত এলাকাগুলিকে সর্তক করা হয়েছে।