• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হিটলার ‘গণতন্ত্রের ফসল’, দাবি রাম মাধবের

Ram Madhav
বিজেপি নেতা রাম মাধব।

Advertisement

বিরোধীরা বার বার অভিযোগ করেন, নরেন্দ্র মোদীর সরকার দেশে একনায়কতন্ত্র কায়েমের করতে চাইছে। মোদীর সঙ্গে হিটলার-মুসোলিনির তুলনা করতেও ছাড়ছে না বিরোধী শিবির। সেই আক্রমণের জবাব দিতে জার্মানির একনায়কতন্ত্রী অ্যাডলফ হিটলার ও ইটালির বেনিটো মুসোলিনিকেই অস্ত্র করলেন বিজেপি নেতা রাম মাধব। তাঁর মন্তব্য, হিটলার ও মুসোলিনিও ‘গণতন্ত্রের ফসল’। 

রাইসিনা বৈঠকে গত কাল সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) বিষয়টি তোলেন রাম মাধব। তাঁর মতে, যাঁরা নির্বাচনে পরাজিত হয়েছেন, তাঁরাই হিংসাকে প্রশ্রয় দিয়ে রাস্তাকে গণতন্ত্রের মঞ্চ করে তুলতে চাইছেন। সিএএ বিরোধী আন্দোলনে কেন্দ্র ‘দমন-পীড়ন’ চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে বিরোধীরা মোদীর সঙ্গে ‘হিটলার-মুসোলিনি’র তুলনা টানছেন। এ নিয়ে রাম মাধবের পাল্টা, ‘‘হিটলার-মুসোলিনিও গণতন্ত্র থেকেই উঠে এসেছিলেন।’’ রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, ওই বিজেপি নেতা বোঝাতে চেয়েছেন, চল্লিশের দশকের গণতন্ত্রের সঙ্গে আজকের গণতন্ত্রের ফারাক আছে। হিটলার, মুসোলিনিও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে উঠে এসেছিলেন। কিন্তু বর্তমান ভারতে মোদীর বিরোধিতা করা যাচ্ছে, অর্থাৎ সময়ের সঙ্গে গণতন্ত্রও পরিণত হয়েছে। রাম মাধব বলেন, ‘‘ভারতের একটি সংবেদনশীল সংবিধান রয়েছে। বিজেপি তা মেনে চলে।’’

রাম মাধবের বক্তব্য, সিএএ গণতান্ত্রিক পথেই তৈরি হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘‘সংসদে আলোচনা হয়েছে। সরকার সব প্রশ্নের উত্তরও দিয়েছে।’’ বিজেপি নেতার মতে, হতাশা থেকেই দাবি করা হচ্ছে, গণতন্ত্র ধ্বংসের পথে। কিন্তু দেশে বহু বার সরকার পরিবর্তন হয়েছে। গণতন্ত্রে কেউ চিরস্থায়ী নয়।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন