• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চার বছর ধরে লাগাতর ধর্ষণ, ভিডিয়ো রেকর্ড করে হুমকি খুড়তুতো দাদার

Representational Image
প্রতীকী ছবি।

চার বছর ধরে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ উঠল হায়দরাবাদে। দিনের পর দিন ১৬ বছরের মেয়েটিকে এমন ভাবে ধর্ষণ করত তাঁরই খুড়তুতো দাদা এবং দাদার বন্ধুরা। পুলিশ সূত্রে খবর, তারা মোবাইলে তুলেও রাখত ধর্ষণের মুহূর্ত। এমনকি ভিডিয়ো ফাঁস করার ভয় দেখিয়ে দিনের পর দিন তাঁকে ধর্ষণ করা হত বলেও পুলিশকে জানিয়েছে ওই মেয়েটি। ওই নাবালিকার বয়ান অনুযায়ী, তিন জনকে গ্রেফতার করেছে হায়দরাবাদ পুলিশ।

‘ঘটনা চলাকালীন বাড়ির কেউই আমরা বুঝতে পারিনি’, পুলিশকে এই কথাই জানিয়েছে মেয়েটির দাদা। এমনকি গত মাসে মেয়েটি হায়দরাবাদের ভরসা সেন্টারে অভিযোগ জানালে তার পরেই সকলের নজরে আসে বিষয়টি। আর সেখান থেকেই বিষয়টি পুলিশে জানানো হয়।

পুলিশের কাছে ওই নাবালিকা অভিযোগ জানিয়েছে, বাড়ির উঁচুতলায় নিয়ে গিয়ে মাদক মিশ্রিত পানীয় খাইয়ে প্রথমে তাঁকে বেহুঁশ করত তাঁর খুড়তুতো দাদা। আর তার পরেই চলত অমানবিক অত্যাচার। ধর্ষণের মুহূর্তের ভিডিয়োও রেকর্ড করে মেয়েটিকে হুমকি দেওয়া হত বলে পুলিশকে জানিয়েছে সে।

হায়দরাবাদে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন নাবালিকার পরিবার এবং প্রতিবেশীরা।

ওই নাবালিকার পরিবার সূত্রে খবর, গ্রেফতার হওয়া একজনকে রাজসাক্ষী বানিয়েছে পুলিশ। তবে পুলিশের বিচারের প্রক্রিয়া নিয়ে অসন্তোষ জানিয়েছে মেয়েটির পরিবার। তাঁদের কথায়, ‘‘একজন অভিযুক্তকে কী ভাবে সাক্ষী বানাতে পারে পুলিশ? অভিযুক্তের আর এক বন্ধুকেও সাক্ষী বানানো হয়েছে পুলিশের তরফে। যদি আসল ঘটনাটা বদলে কোর্টে গিয়ে মিথ্যা ঘটনা বানিয়ে বলে তখন কী হবে? প্রত্যেক অভিযুক্তের যত দ্রুত সম্ভব শাস্তি চাইছি আমরা।’’

আরও পড়ুন: ‘মাথা কেটে ফুটবল খেলা’ হাওড়ার সেই রামুয়া খুন! গভীর রাতে ফ্ল্যাটে ঢুকে গুলি

আরও পড়ুন: লাইন দিয়ে কুকুর খুন, ভয়ঙ্কর অত্যাচারের ভিডিয়ো প্রকাশ্যে এল

নাবালিকার পরিবার এবং প্রতিবেশীরা ইতিমধ্যেই ন্যক্কারজনক ঘটনাটির প্রতিবাদ জানিয়েছেন। দিনের পর দিন নির্যাতনের ফলে মানসিক ভাবে অবসাদগ্রস্ত ওই নাবালিকা। তার দাদার কথায়, ‘‘মানসিক ভাবে আমার বোন ভেঙে পড়েছে ঠিকই। কিন্তু ও পড়াশোনাটা চালিয়ে যেতে চায়।’’

(দেশজোড়া ঘটনার বাছাই করা সেরাবাংলা খবরপেতে পড়ুন আমাদেরদেশবিভাগ।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন