কর্নাটকের প্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রী জি পরমেশ্বরের বাসভবন এবং তাঁর যাতায়াত রয়েছে এমন ৩০জায়গায় হানা দিল আয়কর দফতর। হানা দেওয়া হল তাঁর বাসভবনেও। কংগ্রেস নেতা পরমেশ্বরের দাবি, এই তল্লাশির বিষয়ে তিনি কিছুই জানতেন না।

জি পরমেশ্বরের বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। দাবি আয়কর বিভাগের। জি পরমেশ্বর ট্রাস্ট পরিচালিত মেডিক্যাল কলেজে ব্যাপক কালো টাকা লেনদন হয়েছে বলে অভিযোগ। বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমকে পরমেশ্বর বলেন, ‘‘আয়কর অফিসাররা তল্লাশি চালান, আমার কোনও অসুবিধে নেই। তবে, আমার দিক থেকে কোনও ভুল হয়ে থাকলে আমি অবশ্যই তা সংশোধন করব।’’

আরও পড়ুন:‘মুচলেকা কেন?’ কাশ্মীরে রাজনীতিকদের শর্তসাপেক্ষ মুক্তি নিয়ে প্রতিবাদ মেহবুবা কন্যার
আরও  পড়ুন: আরবিআই-এর অনুমানের চেয়েও কমবে ভারতের জিডিপি বৃদ্ধির হার, আশঙ্কা মুডি’জের রিপোর্টে

এদিন সকাল সাড়ে ছ’টা থেকে তল্লাশি শুরু করে আয়কর দফতরের চার অফিসার। তারা সোজা চলে যান সিদ্ধার্থ গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশনে। এই প্রতিষ্ঠানের মালিকানা প্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রীর নামেই। সেখান থেকে তাঁরা যান কোলার অঞ্চলের মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালেও। তল্লাশি চলে পরমেশ্বরের বাসভবনেও।

কর্নাটকের প্রধান বিরোধী দলনেতা সিদ্দরামাইয়া এই তল্লাশি অভিযানকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ বলে মন্তব্য করেন। নিজের টুইটারে তিনি লেখেন, ‘কংগ্রেস নেতাদের টার্গেট করা হচ্ছে। আসলে দুর্নীতি বা সরকারি নীতি কোনও বিষয়েই সরকার আমাদের মুখোমুখি হতে পারছে না।’

দেখুন সিদ্দারামাইয়ার টুইট-