কত আসন পাবে বিজেপি, পশ্চিমবঙ্গেই বা ক’টা? কী বলছে সমীক্ষা...
এই মুহূর্তে ভোট হলে সম্ভাব্য ফলাফল কী হতে পারে, তা নিয়ে একটি জনমত সমীক্ষার ফলাফল রবিবার প্রকাশ করেছে এবিপি নিউজ ও সি-ভোটার।
modi

এবিপি নিউজ ও সি-ভোটার-এর জনমত সমীক্ষা বলছে, পাকিস্তানের বালাকোটে বিমান অভিযানের সাফল্য পুঁজি করেও সরকার গড়ার জন্য প্রয়োজনীয় ২৭২টি আসন পাচ্ছে না বিজেপির জোট এনডিএ।

এই মুহূর্তে ভোট হলে সম্ভাব্য ফলাফল কী হতে পারে, তা নিয়ে একটি জনমত সমীক্ষার ফলাফল রবিবার প্রকাশ করেছে এবিপি নিউজ ও সি-ভোটার। ফেব্রুয়ারির শেষ থেকে এ মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত সমীক্ষাটি করা হয়। ৫১ হাজার মানুষের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে বলে সমীক্ষকদের দাবি। সমীক্ষা বলছে, দেশে ২২০টি আসন পেতে পারে বিজেপি। তাদের জোট এনডিএ পেতে পারে ২৬৪টি আসন। তবে সবার চেয়ে বেশি ৪১ শতাংশ ভোট পেতে পারে এনডিএ। পাশাপাশি কংগ্রেসের ইউপিএ জোট ৩১ শতাংশ ভোট পেলেও ১৪১টির কাছাকাছি আসন পেতে পারে।

ফলে সরকার গড়ার চাবি থাকছে ইউপিএ ও এনডিএ-র বাইরের আঞ্চলিক দলগুলির হাতেই। সমীক্ষা অনুযায়ী ২৮ শতাংশ ভোট পেতে পারে এই আঞ্চলিক দলগুলি। ২৮ শতাংশ ভোট পেতে পারে তারা।

ভারতে সাধারণ নির্বাচনের ইতিহাস সম্পর্কে এই তথ্যগুলি জানেন কি?

সমীক্ষা বলছে, পশ্চিমবঙ্গে ৪২টি আসনের মধ্যে তৃণমূল ৪১ শতাংশ ভোট ও ৩৪টি আসন পেতে পারে। বিজেপি ৩৫ শতাংশ ভোট পেলেও ৮টির বেশি আসন পাচ্ছে না। কংগ্রেস ও বাম যাথাক্রমে ৮ ও ১৫ শতাংশ ভোট পেলেও কোনও আসন হয়তো পাবে না। তবে দু’পক্ষের জোট ঘোষণার আগেই এই সমীক্ষাটি করা।

আরও পড়ুন: সরকারি বিজ্ঞাপন বন্ধ, প্রথম পাতা ফাঁকা রেখেই কাগজ ছাপল কাশ্মীরে

এর আগেও কয়েকটি সমীক্ষার ফলে এমন প্রবণতাই চোখে পড়েছিল। নতুন সমীক্ষা বলছে— বালাকোটে বিমানবাহিনীর অভিযান নিয়ে যে জাতীয়তাবাদের ঢেউ তোলা হয়েছে, তাতে এনডিএ বিশেষ সুবিধা পাচ্ছে না। সম্ভাব্য আসন বাড়লেও তা সামান্য। এই ধরনের সমীক্ষার ফল অনেক সময় না মিললেও প্রবণতা কিছুটা বোঝা যায়। তবে রাজনৈতিক দলগুলির বক্তব্য, দিন ঘোষণার পরেই ভোটাররা ঠিক করেন, কাকে ভোট দেবেন। তাই ফল বদলাতেই পারে।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত