ভারতের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আশঙ্কার পূর্বাভাস দিচ্ছে আইএমএফ, ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্ক-সহ একাধিক আন্তর্জাতিক মঞ্চ। কিন্তু, সেই দায় এ বার মনমোহন সিংহ ও রঘুরাম রাজন জুটির ঘাড়েই চাপিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তাঁর দাবি, ওই সময়েই দেশের ব্যাঙ্কগুলির হাল সবচেয়ে খারাপ হয়েছে।

মঙ্গলবার নিউইয়র্কের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির স্কুল অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড পাবলিক অ্যাফেয়ার্সে বক্তৃতা দেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। সেখানে স্বাভাবিক ভাবেই রঘুরাম রাজনের প্রসঙ্গও উঠে আসে। আর সেই মঞ্চকে পুরোদমে ব্যবহার করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘রঘুরাম রাজনকে এক জন পণ্ডিত হিসাবে আমি শ্রদ্ধা করি। তাঁকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর হিসাবে বেছে নেওয়া হয়েছিল যখন ভারতীয় অর্থনীতি স্বচ্ছল ছিল। ’’ কিন্তু, পরিচিত গণ্ডি ধরেই আক্রমণ শানিয়েছেন নির্মলা। তিনি অভিযোগ করেন, ‘‘রাজন যখন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর ছিলেন তখন নেতাদের কথায় ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ দেওয়া হত। পাবলিক সেক্টর ব্যাঙ্কগুলি এই পাঁক থেকে বেরনোর জন্য এখন সরকারের ‘ইকুয়িটি ইনফিউশন’--এর উপর নির্ভর করে রয়েছে।’’ এর পরেই মোক্ষম আঘাতটা হানেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘আমি রাজনকে উপযুক্ত সম্মান জানালেও এই তথ্যটা সকলের সামনে তুলে ধরব যে, মনমোহন সিংহ এবং রঘুরাম রাজনের জুটির সময়ে দেশের ব্যাঙ্কগুলি যে দুর্দশার মধ্যে দিয়ে গিয়েছিল তা আর কোনও দিন হয়নি।’’

সম্প্রতি মোদী সরকারের আর্থিক নীতিকে তুলোধোনা করেছিলেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন। ব্রাউন ইউনিভার্সিটিতে দেওয়া বক্তৃতায় মোদী সরকারের আর্থিক নীতির তীব্র সমালোচনা করেন রঘুরাম রাজন। ‘সংখ্যাগরিষ্ঠতা দেশকে অনিশ্চিত পথ ও অন্ধকারের তলানিতে নিয়ে যাচ্ছে’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি। একই সঙ্গে ২০১৬-র নভেম্বরে মোদী সরকারের নোটবন্দির মতো সিদ্ধান্ত নিয়েও সরব হন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজনও।

আরও পড়ুন: গাড়িতে গুলির টুকরো, দমদমে তরুণের রহস্য মৃত্যু, পিছনে ত্রিকোণ প্রেম?
আরও পড়ুন: ‘যেখানে পেতাম মারতাম’! ৫ তারিখ থেকেই তক্কে তক্কে ছিল উৎপল, ব্যাগেই থাকত হাঁসুয়া