পলাতক আর্থিক অপরাধী আইনের মামলায় আগামিকালের মধ্যে মুম্বইয়ের আদালতে হাজিরা দেওয়ার কথা বিজয় মাল্যের। তার আগে মাল্য, নীরব মোদী ও মেহুল চোক্সীর মতো পলাতক আর্থিক অপরাধীদের নিয়ে ফের নরেন্দ্র মোদী সরকারকে বিঁধেছেন রাহুল গাঁধী। জবাবে এখনও মুখ খোলেনি বিজেপি।

মাল্যের প্রত্যর্পণ নিয়ে ব্রিটেনে আইনি লড়াই লড়ছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। ভারতের জেলের দুরবস্থা নিয়ে ব্রিটিশ আদালতে সওয়াল করেছিলেন মাল্যের আইনজীবীরা। আদালতের নির্দেশে মুম্বইয়ের আর্থার রোড জেলের ১২ নম্বর ব্যারাকের ভিডিয়ো আদালতে পেশ করেছে দিল্লি। ওই ব্যারাকেই মাল্যকে রাখার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

গত কাল লন্ডনে রাহুল বলেন, ‘‘মাল্য, নীরব মোদী, মেহুল চোক্সীর মতো কয়েক জন ব্যবসায়ী সম্পর্কে মোদী সরকার নরম মনোভাব নিচ্ছে। মাল্য যে দেশ ছাড়ার আগে শীর্ষ বিজেপি নেতাদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন তার প্রমাণ আছে।’’ তবে এই নেতারা কারা তা নিয়ে রাহুল মুখ খুলতে চাননি। কংগ্রেস সভাপতির বক্তব্য, ‘‘ভারতীয় জেলের অনেক সমস্যা রয়েছে। কিন্তু মাল্যের মতো লোকের পক্ষে যথেষ্ট উপযোগী। ভারতীয় নাগরিকদের একই রকম বিচার পাওয়া উচিত।’’ রাহুলের প্রশ্ন, ‘‘নীরব মোদী ৩৫ হাজার কোটি টাকার প্রতারণায় অভিযুক্ত। মেহুল চোক্সীর বিরুদ্ধেও ব্যাঙ্ক প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু নীরব মোদী ভারতে কত জনকে চাকরি দিয়েছিলেন?’’

নয়া আর্থিক অপরাধী আইনে মাল্যের বিরুদ্ধে মামলা চলছে মুম্বইয়ের আদালতে। আগামিকালের মধ্যে সেই মামলায় হাজিরা দিতে মাল্যকে নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। ইডি সূত্রের খবর, মাল্যের আইনজীবী হাজিরা দিতে পারেন বলে মনে করছেন গোয়েন্দারা। মাল্যের ১২৫০০ কোটি টাকা দামের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করারও আবেদন জানিয়েছে ইডি।