মশার জ্বালায় অতিষ্ঠ হয়ে যাচ্ছেন এই অভিযোগ করায় জোর করে এক যাত্রীকে ইন্ডিগোর একটি বিমান থেকে জোর করে নামিয়ে দেওয়া হল। মঙ্গলবার সকালে।

বেসরকারি বিমান সংস্থা ইন্ডিগোর ‘৬ই-৫৪১’ বিমানটি লখনউ থেকে যাচ্ছিল বেঙ্গালুরুতে।

যাত্রীর নাম সৌরভ রাই। পেশায় তিনি বেঙ্গালুরুর হার্ট সার্জেন। রাইয়ের অভিযোগ, বিমানে তাঁর সিটে বসার পরেই মশার কামড়ে অতিষ্ঠ হয়ে যান তিনি। বিষয়টি তিনি বিমানসেবিকাদের জানালে তাঁকে জোর করে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। বিমানকর্মীরা তাঁকে ধাক্কা দেন। তাঁকে হুমকিও দেওয়া হয়।

ইন্ডিগোর তরফে অবশ্য ওই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করা হয়েছে। বেসরকারি বিমান সংস্থাটি জানিয়েছে, ‘অভব্য আচরণের জন্যই’ ওই যাত্রীকে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। লখনউ বিমানবন্দর থেকে ওড়ার জন্য তখন বিমানের দরজা সবে বন্ধ হয়েছে। ওই সময়েই তাঁকে মশা কামড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রাই। বিমানকর্মীরা ব্যবস্থা নেওয়ার আগেই ওই যাত্রী অভব্য আচরণ করতে শুরু করেন। আশপাশের যাত্রীদের উত্তেজিত করে তোলার চেষ্টা করেন। হুমকি দেন। বিমানকর্মীদের সঙ্গে বাদানুবাদের সময় ওই যাত্রী ‘বিমান অপরহরণ’-এর মতো শব্দও ব্যবহার করেছেন। এর পরেই ওই যাত্রীকে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

যাত্রী সৌরভ রাই কিন্তু ইন্ডিগো বিমান কর্তৃপক্ষের ওই বক্তব্য মেনে নেননি। তিনি বলেছেন, ‘‘জামার কলার ধরে আমাকে নামিয়ে দিয়েছেন বিমানকর্মীরা। এক জন বিমানকর্মী বলেন, মশা নিয়ে যদি এতই আপত্তি থাকে, তা হলে ভারত ছেড়ে চলে যান না।’’

আরও পড়ুন- ফের ৪২ উড়ান বাতিল​

আরও পড়ুন- ফের দেরি ইন্ডিগোর, মমতাকে নিয়ে চক্কর​

বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকেই ইন্ডিগোর বিমানে মশার কামড়ের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। কেউ টুইটে লেখেন, ‘‘ইন্ডিগোর বিমানে আমার বহু বার মশার কামড় খাওয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে।’’ আর এক জন টুইটে লেখেন, ‘‘গত ৮ এপ্রিল পরিবার নিয়ে ইন্ডিগোর বিমানে চেপে যাওয়ার সময় মশার জ্বালায় জ্বলতে হয়েছে। বিমানের ক্রুদের জানিয়েও কোনও কাজ হয়নি।’’

কয়েক দিন আগে লখনউ বিমানবন্দরে জেট এয়ারওয়েজের একটি বিমানে যাত্রীদের মশা তাড়ানোর ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।