বান্দিপোরায় তিন বছরের বালিকার ধর্ষণ নিয়ে উত্তেজনা কমেনি কাশ্মীরে। তার মধ্যেই ফের মধ্য কাশ্মীরের গান্ধেরবালে এক কিশোরীর ধর্ষণের ঘটনা সামনে এসেছে।

বান্দিপোরায় ধর্ষণের জেরে তিন দিন ধরে বিক্ষোভ দেখেছে উপত্যকা। বাহিনী-জনতা সংঘর্ষে আহত হয়েছিলেন ১২ জন। আজ সংঘর্ষে আহত আরশাদ আহমেদ দার নামে এক যুবকের শ্রীনগরের হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে। এ দিন অবশ্য হিংসার খবর পাওয়া যায়নি। কিন্তু গান্ধেরবালে এক কিশোরীর ধর্ষণের খবর সামনে আসায় উদ্বেগ বেড়েছে প্রশাসনের। গান্ধেরবাল পুলিশের সিনিয়র সুপার মহম্মদ খলিল পোসওয়াল জানান, বছর ষোলোর ওই কিশোরী হাররান এলাকার বাসিন্দা। অভিযুক্ত বছর কুড়ির মহম্মদ আসিফ ওয়ানি তার প্রতিবেশী।

রবিবার রাতে এই ঘটনা নিয়ে অভিযোগ দায়ের করে কিশোরীর পরিবার। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার মেডিক্যাল পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও তদন্তকারীদের হাতে আসেনি। ঘটনার তদন্তের জন্য একটি বিশেষ দল গঠন করা হয়েছে।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

বিক্ষোভ: বান্দিপোরায় শিশু ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে শামিল শ্রীনগরের স্কুলছাত্রীরা। বুধবার। ছবি: পিটিআই।

অন্য দিকে বান্দিপোরা কাণ্ডের জেরে হিংসা রুখতে এ দিন বৈঠকে বসেন কাশ্মীরের শিয়া-সুন্নি সমন্বয়কারী কমিটির নেতারা। কমিটির প্রধান ও হুরিয়ত নেতা মিরওয়াইজ উমর ফারুক বৈঠক ডাকলেও অসুস্থতার জন্য হাজির থাকতে পারেননি। বৈঠকের পরে কমিটির নেতারা জানান, বান্দিপোরায় ধর্ষণের ঘটনা গোটা কাশ্মীরি সমাজের পক্ষেই লজ্জার। তার জেরে যাতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব না ছড়ায় সে জন্য সতর্ক থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিটি। 

আজ ওই ঘটনা নিয়ে পুলিশকে স্ট্যাটাস রিপোর্ট জমা দিতে বলেছে জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্ট। প্রধান বিচারপতি গীতা মিত্তল ও বিচারপতি তাশি রবস্তানের বেঞ্চ এই ঘটনা নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে শুনানি শুরু করেছে। আগামিকাল সকাল দশটার মধ্যে বান্দিপোরা তদন্তের রিপোর্ট জমা দিতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন তাঁরা। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত তাহির আহমেদ মিরের আইনজীবী দাবি করেছিলেন, তাঁর মক্কেল নাবালক। কিন্তু পুলিশ জানিয়েছে, মেডিক্যাল পরীক্ষায় তার নাবালকত্বের প্রমাণ মেলেনি। তাহিরের জন্মের ভুয়ো শংসাপত্র দেওয়ার অভিয‌োগে স্থানীয় এক স্কুলের প্রিন্সিপালকে আটক করেছে পুলিশ।