উত্তরপ্রদেশে ফের আক্রান্ত সাংবাদিক। এ বার পিলিভিটে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, জমি দখল সংক্রান্ত খবর করায় ওই সাংবাদিকের উপর হামলা হয়। ওই সাংবাদিকে ভুয়ো ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এই মুহূর্তে আশঙ্কাজনক অবস্থা ওই সাংবাদিক হাসপাতালে চিকিত্সাধীন। এই ঘটনায় চার জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পিলিভিট পুলিশ। এর আগে ফেসবুকে মন্ত্রীর বিরুদ্ধে লেখার জন্য সাংবাদিক যোগেন্দ্র সিংহকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ ওঠে উত্তরপ্রদেশেরই শাহজাহানপুরে।

পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার সন্ধে ৬টায় সাংবাদিক হায়দার খানের কাছে একটি ফোন আসে। তাঁকে বলা হয়, একটি ডাকাতির মামলার এক প্রত্যক্ষদর্শী মারাত্মক দুর্ঘটনায় পড়েছেন। তিনি যেন ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করেন। এর পর ওই সাংবাদিক ঘটনাস্থলে পৌঁছলে‌ তাঁকে সেখানেই তিন-চার জনের একটি দল ঘিরে ধরে বেধড়ক মারধর শুরু করে। এর পর তাঁকে একটি মোটরবাইকের সঙ্গে বেঁধে প্রায় একশো মিটার টানতে টানতে নিয়ে যাওয়া হয় বলে জানিয়েছেন হায়দার নিজেই।

সাংবাদিক যোগেন্দ্র সিংহ খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত অখিলেশ যাদব মন্ত্রিসভার অনগ্রসর কল্যাণমন্ত্রী রামমূর্তি এখনও ফেরার। বার বার উত্তরপ্রদেশেই কেন সাংবাদিকেরা এই ধরনের ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে অখিলেশের মন্ত্রিসভার অন্দরেই।