• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চাকরি দেব বলে ডেকে ধর্ষণ, উন্নাও-কাণ্ডে দু’বছর পর দোষী সাব্যস্ত কুলদীপ

Unnao
আদালতে দোষী সাব্যস্ত কুলদীপ সিংহ সেঙ্গার। —ফাইল চিত্র।

Advertisement

গরিব পরিবারের উপর সদয় হয়েছেন বিধায়ক। চাকরি করে দেবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। সরল মনে তা-ই বিশ্বাস করে নিয়েছিল ১৬ বছরের কিশোরী। চাকরি চাইতে তা-ই বিধায়কের বাড়িতে গিয়ে হাজির হয়েছিল। ‘অভিশপ্ত’ সেই সন্ধ্যার পর ‘সুবিচার’ পেতে দু’বছরেরও বেশি সময় লেগে গেল উন্নাওয়ের নির্যাতিতার।

দীর্ঘ টানাপড়েনের পর সোমবার মূল অভিযুক্ত কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারকে দোষী সাব্যস্ত করেছে দিল্লির তিস হাজারি কোর্ট। সাজা ঘোষণা হয়নি এখনও। প্রমাণের অভাবে ছাড় পেয়ে গিয়েছে অন্য অভিযুক্ত শশী সিংহও।  কিন্তু পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন নির্যাতিতার বাবার রহস্যমৃত্যু, আদালতে যাওয়ার পথে নির্যাতিতার গাড়িতে দুর্ঘটনা, এ সবেরও সদুত্তর মেলেনি এখনও পর্যন্ত। দেখে নেওয়া যাক ২০১৭ সালে ঠিক কী ঘটেছিল এবং এত দিনে কী ভাবে এগিয়েছে ঘটনাবলী...

• ১১ জুন, ২০১৭: উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ের মাখি গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয়ে যান ১৭ বছরের নির্যাতিতা। তা নিয়ে থানায় অভিযোগ জানায় তাঁর পরিবার।

• ২০ জুন, ২০১৭: অরাইয়া থেকে নির্যাতিতাকে উদ্ধার করল পুলিশ।

উন্নাও ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত প্রাক্তন বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গার আরও পড়ুন

• ২২ জুন, ২০১৭: ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে বয়ান রেকর্ড নির্যাতিতার। তিনি জানান, শশী সিংহ নামের এক মহিলা, তাঁর ছেলে শুভম সিংহ এবং মেয়ে নিধি সিংহ তাঁকে চাকরি এবং কানপুরে নিয়ে গিয়ে স্বচ্ছল জীবনের লোভ দেখায়। সেই মতো ১১ জুন শুভম সিংহের সঙ্গে বেরোন তিনি। কিন্তু শুভম, তার গাড়ির চালক অওধেশ তিওয়ারি, ব্রজেশ যাদব এবং আরও বেশ কয়েক জন মিলে তাঁকে ধর্ষণ করে ।

• ৩ জুলাই, ২০১৭: পুলিশের গড়িমসি দেখে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে চিঠি লেখেন নির্যাতিতা। তাতে তিনি জানান, ১১ জুনের আগেও ধর্ষণের শিকার হন তিনি। চাকরি চাইতে গেলে  ৪ জুন রাত ৮টা নাগাদ নিজের বাড়িতে তাঁকে ধর্ষণ করেন বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিংহ। নিজের বয়ানে পুলিশকেও তা জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কুলদীপ সিংহের নাম বাদ দিতে বলা হয় তাঁকে।

• ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮: চিঠি দেওয়ার পর এক বছর পেরিয়ে গেলেও যোগী সরকারের তরফে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি।তাই চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন নির্যাতিতার মা।  এর পরেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। উল্টে কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের লোকজন নির্যাতিতার পরিবারকে হেনস্থা করতে শুরু করে। 

• ৩ এপ্রিল, ২০১৮: উন্নাও আদালতে শুনানির জন্য গেলে লোকজন নিয়ে কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের ভাই অতুল সিংহ নির্যাতিতার বাবাকে মারধর করে। গাছে বেঁধে লাঠি, রড এবং বেল্ট দিয়ে পেটানো হয় তাঁকে। থানায় জানালে অতুল সিংহের নাম বাদ দিয়ে পাঁছ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে পুলিশ।

• ৪ এপ্রিল, ২০১৮: বেআইনি অস্ত্র রাখার অভিযোগে নির্যাতিতার বাবাকেই গ্রেফতার করে পুলিশ। বলা হয়, প্রায় এক দশক ধরে কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের পরিবাররে সঙ্গে বিরোধ তাঁদের।

• ৮ এপ্রিল, ২০১৮: বিধ্বস্ত অবস্থায় যোগী আদিত্যনাথের বাসভবনের সামনে ধর্না  নির্যাতিতা ও তাঁর পরিবারের। গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করেন নির্যাতিতা। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে তিনি জানান, ‘‘আমাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। গত এক বছর ধরে দরজায় দরজায় ঘুরে বেড়াচ্ছি। কিন্তু কেউ আমার কথা কানেই তুলছে না। ওদের সকলকে গ্রেফতার করুক পুলিশ। নইলে আত্মঘাতী হব আমি। মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। এফআইআর দায়ের করার পর থেকে আমাদেরই হেনস্থা করা হচ্ছে।’’ কিন্তু ইচ্ছাকৃত ভাবে তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ উড়িয়ে দেন সেঙ্গার।

• ৯ এপ্রিল, ২০১৮: পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন রহস্য মৃত্যু নির্যাতিতার বাবার। পরে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে রক্তে বিষক্রিয়া এবং কোলনে ফুটো হয়ে যাওয়ার উল্লেখ ছিল।  তাঁর সারা শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল বলেও জানা যায়।

• ১০ এপ্রিল, ২০১৮: নির্যাতিতার বাবাকে মারধরের অভিযোগে অতুল সিংহ-সহ মোট পাঁচ জন গ্রেফতার।

• ১১ এপ্রিল, ২০১৮: ধর্ষণ এবং হেফাজতে নির্যাতিতার বাবার মৃত্যু নিয়েবিশেষ তদন্ত কমিটি সিট গড়ার নির্দেশ যোগী আদিত্যনাথ সরকারের। নিরাপত্তা দেওয়ার বাহানায় নির্যাতিতা এবং তার পরিবারকে উন্নাওয়ের একটি হোটেলে সরানো হয়। কিন্তু সেখানে জল এবং বিদ্যুৎ ছিল না বলে অভিযোগ।

‘চার বছরেই রাম মন্দির’, নাগরিকত্ব-এনআরসি মুখেই আনলেন না অমিত শাহ আরও পড়ুন

• ১২ এপ্রিল, ২০১৮: কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের বিরুদ্ধে অপহরণ এবং ধর্ষণের মামলা দায়ের। পকসো আইনে মামলা। মামলার তদন্ত সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয় রাজ্য সরকার। এফআইআর দায়ের হওয়া সত্ত্বেও সেঙ্গারকে গ্রেফতার করা হল না কেন, প্রশ্ন ইলাহাবাদ হাইকোর্টের।

• ১৩ এপ্রিল, ২০১৮: লখনউয়ের ইন্দিরা নগর থেকে সাত সকালে কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারকে গ্রেফতার সিবিআইয়ের। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের।

• ১৫ এপ্রিল, ২০১৮: অন্য অভিযুক্ত শশী সিংহকে গ্রেফতার করে সিবিআই। শশী সিংহই নির্যাতিতাকে সেঙ্গারের বাড়িতে নিয়ে গিয়েছিলেন এবং ধর্ষণের সময় বাইরে পাহারা দিচ্ছিলেন বলে জানা যায়।

• ৭ জুলাই, ২০১৮: নির্যাতিতার বাবাকে হত্যার দায়ে অতুল সিংহ-সহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে চার্জগঠন সিবিআইয়ের।

• ১১ জুলাই, ২০১৮: ধর্ষণ মামলায় সেঙ্গার এবং শশী সিংহের বিরুদ্ধে চার্জগঠন।

• ১৩ জুলাই, ২০১৮: বেআইনি অস্ত্র মামলায় নির্যাতিতার বাবার গ্রেফতারি নিয়ে সেঙ্গার এবং আরও ন’জনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের চার্জগঠন সিবিআইয়ের।

• ৩১ জুলাই, ২০১৮: ১২ বছরের কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণের ক্ষেত্রে অপরাধীকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার পক্ষে বিল পাশ লোকসভায়।

• ১৮ অগস্ট, ২০১৮: নির্যাতিতার বাবার হত্যা মামলার অন্যতম সাক্ষী ইউনুসের রহস্য মৃত্যু। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ এবং সিবিআইয়ের কাছে নিরাপত্তার আর্জি নির্যাতিতার পরিবারের।

• ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮: নির্যাতিতা, তাঁর মা এবং কাকার বিরুদ্ধেই এফআইআর। নির্যাতিতার বয়স নিয়ে জাল নথি জমা দেওয়ার অভিযোগ। শশী সিংহের স্বামী হরিপাল সিংহ এই অভিযোগ করেন।

• ৪ জুলাই, ২০১৯: অতুল সিংহের দায়ের করা প্রায় দু’দশক পুরনো মামলায় নির্যাতিতার কাকার ১০ বছরের কারাদণ্ড।

দুর্ঘটনায় দুমড়ে-মুচড়ে যায় নির্যাতিতার গাড়ি। —ফাইল চিত্র।

• ২৮ জুলাই, ২০১৯: রায়বরেলী যাওয়ার পথে নির্যাতিতা ও তাঁর পরিবারে গাড়িতে ট্রাকের ধাক্কা। ট্রাকের নম্বর প্লেটে কালি লেপা ছিল। দুর্ঘটনায় নির্যাতিতার কাকিমা ও তাঁর বোনের মৃত্যু। নির্যাতিতা ও তাঁর আইনজীবী মহেন্দ্র সিংহ গুরুতর আহত।

• ২৯ জুলাই, ২০১৯: পরিকল্পিত ভাবে দুর্ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে অভিযোগ নির্যাতিতার মায়ের। সেঙ্গার ও ন’জনের বিরুদ্ধে এফআইআর।

• ৩০ জুলাই, ২০১৯: কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারকে দল থেকে বহিষ্কৃত করা হয়েছে বলে ঘোষণা বিজেপির।

• ৩১ জুলাই, ২০১৯: প্রধান বিচারপতিকে লেখা নির্যাতিতার চিঠি প্রকাশ্যে। দুর্ঘটনার এক মাস আগে তিনি ওই চিঠি লিখেছিলেন বলে জানা যায়। তাতে নির্যাতিতা বলেন, মামলা তুলে নিতে তাঁদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

• ১ অগস্ট, ২০১৯: দেরিতে চিঠি পাওয়া নিয়ে আদালতের সেক্রেটারি জেনারেলের জবাব তলব সুপ্রিম কোর্টের। উন্নাও ধর্ষণকাণ্ড সংক্রান্ত পাঁচটি মামলাই দিল্লিতে সরিয়ে আনার নির্দেশ।

• ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯: কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারকে দোষী সাব্যস্ত করল দিল্লির তিস হাজারি কোর্ট।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন