• Anandabazar
  • >>
  • national
  • >>
  • Lok Sabha Election 2019: Congress asks EC to cancel Amit Shah’s nomination for false affidavit dgtl
৬৬ লক্ষের সম্পত্তিকে ২৫ লক্ষ দেখিয়েছেন! অমিতের মনোনয়ন বাতিলের আর্জি কংগ্রেসের
কংগ্রেসের অভিযোগ, এই ভুল ইচ্ছাকৃত। তাই গাঁধীনগর কেন্দ্র থেকে যাতে অমিত শাহ প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করতে পারেন, তার জন্য ব্যবস্থা নিক নির্বাচন কমিশন।
Amit Shah

নয়া বিতর্কে অমিত শাহ। ফাইল চিত্র।

ইচ্ছাকৃত ভাবে নির্বাচন কমিশনে পেশ করা হলফনামায় সম্পত্তির পরিমাণ কমিয়ে দেখিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ, এই অভিযোগে গাঁধীনগর কেন্দ্রে অমিত শাহের মনোনয়ন বাতিলের দাবি জানাল কংগ্রেস। শুধু তাই নয়, তাঁর বিরুদ্ধে ‘ভুয়ো হলফনামা’ পেশের অভিযোগও কমিশনকে জানিয়েছে তারা। কংগ্রেসের দাবি, এই নির্বাচনে যাতে গাঁধীনগর কেন্দ্র থেকে অমিত শাহ প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করতে পারেন, তার জন্য ব্যবস্থা নিক নির্বাচন কমিশন

নিজেদের অভিযোগে কংগ্রেস জানিয়েছে, ‘ফের একটি ভুয়ো হলফনামা জমা দিয়েছেন অমিত, যেখানে দু’টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বাদ দেওয়া হয়েছে। প্রথমটি হল গাঁধীনগরের একটি জমি। দ্বিতীয়টি হল, একটি বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক থেকে তাঁর ছেলের নামে নেওয়া ঋণ। এই ঋণের জন্য গ্যারান্টার ছিলেন অমিত নিজেই।’

কংগ্রেসের অভিযোগ, ‘ইচ্ছাকৃত ভাবে গাঁধীনগরের সম্পত্তির পরিমান কমিয়ে দেখিয়েছেন অমিত শাহ। সরকারি নথি অনুযায়ী, এই সম্পত্তির বাজারদর ৬৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। অথচ নিজের পেশ করা হলফনামায় এই সম্পত্তির মূল্য ২৫ লক্ষ টাকা দেখানো হয়েছে।’

আরও পড়ুন: ‘মোদীজি কি সেনা’ মন্তব্যের জের, যোগী আদিত্যনাথকে সতর্ক করল নির্বাচন কমিশন

গাঁধীনগরের জমি ছাড়াও একটি ব্যাঙ্ক লোনের প্রসঙ্গও তুলেছে কংগ্রেস। তাঁদের দাবি, লোকসভা নির্বাচনের মনোনয়ন পেশের আগেই নিজের দু’টি সম্পত্তি কালুপুর কমার্শিয়াল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কে বন্ধক রেখেছিলেন অমিত। নিজের ছেলে জয় শাহ-র কোম্পানি ‘কুসুম ফিনসার্ভ’-এর জন্যই এই সম্পত্তি বন্ধক রেখেছিলেন তিনি। অভিযোগে কংগ্রেস জানিয়েছে, ‘এই জমি বন্ধক রাখার জন্যই অমিত শাহ-র ছেলে জয় শাহকে ২৫ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছিল গুজরাতের অন্যতম বৃহত্তম এই কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক। কিন্তু নিজের হলফনামায় এই লোনের বিষয়টি চেপে গিয়েছেন অমিত শাহ।’

আরও পড়ুন: দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

কংগ্রেসের অভিযোগ, এই ভুল ইচ্ছাকৃত। তাই গাঁধীনগর কেন্দ্র থেকে যাতে অমিত শাহ প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করতে পারেন, তার জন্য ব্যবস্থা নিক নির্বাচন কমিশন। একই সঙ্গে ভুয়ো হলফনামা দাখিলের জন্য বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করার আর্জিও জানিয়েছে কংগ্রেস।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত