মমতার মতো ধর্নার হুমকি কুমারস্বামীরও
কুমারস্বামী গত কাল হুমকি দিয়েছিলেন, লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্র যদি বিরোধী নেতাদের বিপদে ফেলার চেষ্টা করে, তা হলে তিনি ‘মমতার মতোই মোকাবিলা’ করবেন।
mamata

—ফাইল চিত্র।

তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতোই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ধর্নায় বসার হুঁশিয়ারি দিলেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী। আজ ভোর রাতে জেডি(এস) নেতা-মন্ত্রীদের বাড়ি-অফিসে আয়কর দফতর অভিযান চালায়। কুমারস্বামীর অভিযোগ, ভোটের আগে ওই অভিযান ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত’। 

আয়কর দফতর আজ ভোর রাতে কর্নাটকে যাঁদের বাসভবন ও বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে, তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য রাজ্যের ক্ষুদ্র সেচমন্ত্রী সি এস পুট্টারাজু এবং তাঁর ভাইপো অশোক। কুমারস্বামীর ছেলে নিখিল মান্ড্য এবং তাঁর ভাইপো প্রজ্জ্বল রেভান্না হাসন লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী। দেবগৌড়া পরিবারের ওই দুই সদস্যের নির্বাচনী প্রচারের দায়িত্বে রয়েছেন পুট্টারাজু এবং অশোক। এ ছাড়াও কুমারস্বামীর ভাই পূর্তমন্ত্রী এইচ ডি রেভান্নার সহযোগীদের বাড়ি ও অফিসেও আয়কর দফতরের আধিকারিকেরা তল্লাশি চালান। ওই আয়কর অভিযানে বেজায় চটেছেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘আয়কর অভিযান সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। এর প্রতিবাদে আমি বেঙ্গালুরুতে ধর্নায় বসব। গোটা দেশ দেখুক, আয়কর দফতরকে কী ভাবে অপব্যবহার করা হচ্ছে।’’ 

কুমারস্বামী গত কাল হুমকি দিয়েছিলেন, লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্র যদি বিরোধী নেতাদের বিপদে ফেলার চেষ্টা করে, তা হলে তিনি ‘মমতার মতোই মোকাবিলা’ করবেন। প্রসঙ্গত, গত ফেব্রুয়ারিতে কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাসভবনে সিবিআই হানার প্রতিবাদে ধর্নায় বসেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

আয়কর দফতরের কর্নাটক-গোয়া অঞ্চলের প্রিন্সিপাল চিফ কমিশনার বি আর বালকৃষ্ণাণকে আজ ‘বিজেপির এজেন্ট’ আখ্যা দিয়েছেন। কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘কার কার বাড়িতে আয়কর তল্লাশি চালাতে হবে, তার তালিকা অমিত শাহকে পাঠিয়েছিলেন এক বিজেপি নেতা। অমিত শাহ সেই তালিকা বালকৃষ্ণাণকে দেন। উনি বিজেপির এজেন্টের মতো কাজ করছেন। ওঁর লক্ষ্য অবসরের পর কোনও রাজ্যের রাজ্যপাল হওয়া।’’ বিজেপি নেতা বি এস ইয়েদুরাপ্পাকে এক হাত নিয়েছেন কুমারস্বামী। তিনি বলেন, ‘‘বিজেপি নেতাদের বাড়িতে হানা দিয়ে নোট গোনার যন্ত্র পাওয়া গিয়েছিল। তাঁরা আমাদের সততার পাঠ শেখাচ্ছেন!’’

মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে আয়কর দফতর বিবৃতিতে জানিয়েছে, কোনও মন্ত্রী, সাংসদ, বিধায়কের বাড়ি-অফিসে তল্লাশি চালানো হয়নি। তল্লাশি চালানো হয়েছে শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, আমলা, বড় খনিমালিক এবং চলচ্চিত্র শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের বাড়ি এবং অফিসে।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত