টুইটারের যুদ্ধেও এগিয়ে এনডিএ, হ্যাশট্যাগের লড়াইতেও সবার আগে মোদী
প্রতিটি দফাতেই প্রথম পাঁচটি হ্যাশট্যাগের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে #Namoঅথবা #Modi।
Narendra Modi

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

রাজপথ বা মাঠ-ময়দান ছেড়ে ভোট যুদ্ধ এখন ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতেও। সোশ্যাল মিডিয়ার কতটা দখল কার হাতে থাকছে, সে দিকে বিশেষ নজর রেখেছিল প্রায় সমস্ত রাজনৈতিক দলই। সেখানেও দেখা যাচ্ছে জয়জয়কার নরেন্দ্র মোদীরই। সাত দফার নির্বাচনে শুধু মাত্র ভোটগ্রহণের দিনগুলিকে নিয়ে একটি সমীক্ষা করে নয়াদিল্লির ইন্দ্রপ্রস্থ ইনস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন টেকলোলজি।  সেখানেই দেখা গেল বাকি সবাইকে পিছনে ফেলে ভোটের দিনগুলিতে অনেক এগিয়ে নরেন্দ্র মোদীই।

শুধু মাত্র ভোটের দিনগুলিতেই মোট ১৭ লক্ষ ৪০ হাজার করা হয়েছে টুইটারে। সেখান থেকেই বেছে নেওয়া হয়েছিল মোট ৮৬১ টি হ্যাশট্যাগকে। দেখা যাচ্ছে সেই হ্যাশট্যাগের লড়াই তে সবার আগে নরেন্দ্র মোদী। প্রতিটি দফাতেই প্রথম পাঁচটি হ্যাশট্যাগের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে #Namo অথবা #Modi।

যাঁরা এই সমীক্ষাটি করেছেন, তাঁদের তরফে অধ্যাপক পন্নুরঙ্গম কুমারগুরু বলেছেন, ‘‘যাঁরা রাজনৈতিক বিষয়ে টুইট করছেন, তাঁদের মধ্যে ভোট দেওয়ার প্রবণতা অনেক বেশি, এই সিদ্ধান্তে আমরা পৌঁছেছি এই সমীক্ষার ফলেই। প্রতিটি দফাতেই প্রথম পাঁচটি বিষয়ের মধ্যে দু’টি বিজেপি সম্পর্কিত, একটি দফায় প্রথম পাঁচটি বিষয়ের মধ্যে চারটিই বিজেপি সম্পর্কিত। তৃতীয় দফায় প্রথম পাঁচটির মধ্যে চারটিই হল @narendramodi, @BJP4India, @Amit Shah এবং @BJP4Rajasthan।

আরও পড়ুন: ফের ধাক্কা খেল বিরোধীরা, গণনায় আগে ভিভিপ্যাট মেলানোর দাবি খারিজ করল কমিশন

 কে কাকে ভোট দিচ্ছেন, তা নিয়ে সাধারণ জনমানসে কিছু লুকোছাপা থাকলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষ খুব স্পষ্ট ভাবেই নিজের রাজনৈতিক চিন্তাধারার প্রকাশ করে থাকেন। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে পাওয়া ছবি যদি সারা দেশের বক্তব্য হয়, তা হলে বাকি সবার থেকে অনেকটাই এগিয়ে নরেন্দ্র মোদী, এমনটাই বলছেন সমীক্ষকেরা।

আরও পড়ুন: সুপ্রিম কোর্টও কি ইভিএম কারচুপিতে জড়িত? কংগ্রেস নেতার প্রশ্ন ঘিরে চাঞ্চল্য

এই নির্বাচনে সোশ্যাল মিডিয়া যে একটা বড় ভূমিকা নিয়েছিল, তা এক বাক্যে স্বীকার করে নিয়েছেন অনেক বড় রাজনৈতিক পণ্ডিতই। এই নির্বাচনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, ব্যক্তি, নেতা বা প্রার্থীর ‘ভেরিফায়েড’ বা সরকারি হ্যান্ডলের সংখ্যা ছিল ৩,২১৮। এই টুইটার হ্যান্ডলগুলির মাধ্যমে দ্রুতগতিতে নিজের রাজনৈতিক প্রচার ছড়িয়ে দেওয়া হত সারা দেশে। ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের থেকে শুধু মাত্র টুইটারে রাজনৈতিক আলোচনার সংখ্যা বেড়েছে প্রায় দশ গুণ। শুধু মাত্র ভোটের দিনগুলিতে টুইট করা হয়েছে মোট ৩ লক্ষ ৬৬ হাজার ৯২টি, রি-টুইটের সংখ্যা ১৩ লক্ষ ২৭ হাজার ১৯ এবং উদ্ধৃতি ব্যবহার করা হয়েছে মোট ৫২ হাজার ২৬০টি।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত