‘মোদীর চোখেমুখে এখন হারের ছাপ’
কংগ্রেস সভাপতির অভিযোগ, দুনিয়া ঘুরে বেড়াচ্ছেন এক চৌকিদার, আর নিজেদের খেত রক্ষা করতে বুন্দেলখণ্ডের চাষিদের রাত জাগতে হচ্ছে।
Rahul Gandhi

প্রচার: মধ্যপ্রদেশের আমনগঞ্জে রাহুল গাঁধী। ছবি: পিটিআই।

নরেন্দ্র মোদীর মুখে হারের ছাপ ফুটে উঠেছে। বুন্দেলখণ্ডের জনসভায় আজ এই দাবি করলেন রাহুল গাঁধী। এ সঙ্গেই জানিয়ে দিলেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে ঋণ শোধ না করার জন্য দেশের কোনও চাষিকেই জেলে যেতে হবে না।

মধ্যপ্রদেশে আজ তিনটি জনসভা করেন রাহুল। সে গুলিতে ‘চৌকিদার চোর’ প্রসঙ্গ ফের টেনে আনেন তিনি। এই বিতর্ক সুপ্রিম কোর্টেও গড়ানোর পরে রাহুল আজ বলেন, ‘‘আমি আর কি বলব? যখনই চৌকিদারের কথা তুলি, জনতা বলতে থাকে, চোর হ্যায়।’’  পাথারিয়ার সভায় রাহুল বলেন, ‘‘দিল্লির রেস কোর্স রোডে প্রধানমন্ত্রীর বাড়ির সামনে অস্ত্র হাতে দাঁড়িয়ে থাকে সিআরপি, বিএসএফের জওয়ান‌েরা। গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি, যদি আপনারা, তাঁদের সামনে গিয়ে চৌকিদার শব্দটা বলেন, তাঁরাও বলবেন, চোর হ্যায়।’’

কংগ্রেস সভাপতির অভিযোগ, দুনিয়া ঘুরে বেড়াচ্ছেন এক চৌকিদার, আর নিজেদের খেত রক্ষা করতে বুন্দেলখণ্ডের চাষিদের রাত জাগতে হচ্ছে। জনতার উদ্দেশে রাহুল বলেন, ‘‘কোনও কৃষক কিংবা বেকার যুবকের বাড়ির বাইরে চৌকিদারকে কখনও দেখেছেন? শুধু অনিল অম্বানী, গৌতম আদানিদের বাড়ির বাইরে দেখতে পাবেন।’’ রাহুলের মন্তব্য, ‘‘আমি চৌকিদার হতে চাই না। জনতার আদেশ মেনে চলতে চাই।’’ মোদীর চোখেমুখে হারের ছাপ ফুটে উঠেছে বলে দাবি করে কংগ্রেস সভাপতি বলেন, ‘‘সাত পর্বের ভোটের অর্ধেক শেষ। মোদীর দিকে তাকাবেন। দেখবেন, মুখ চুপসে গিয়েছে। ভয় আর দ্বিধার মধ্যে কথা বলছেন উনি। হারের ছাপ চোখেমুখে। ’’

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

টিকমগড়ের সভায় রাহুল জানান, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে ব্যাঙ্কের ঋণ শোধ না করার জন্য কোনও কৃষককে জেলে যেতে হবে না। বছরে ২২ লক্ষ যুবকের চাকরি হবে। পঞ্চায়েতে কাজ পাবেন ১০ লক্ষ যুবক-যুবতী। ব্যবসা শুরু করার জন্য তিন বছর সরকারের অনুমতি নেওয়ারও প্রয়োজন হবে না। রাফাল নিয়েও আক্রমণাত্মক ছিলেন রাহুল। তাঁর মন্তব্য, ‘‘রাফাল কেলেঙ্কারিতে বায়ুসেনার টাকা চুরি করে ৩০ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে অম্বানীকে। এ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দেখবেন, দুটো নাম বেরিয়ে এসেছে— অনিল অম্বানী, নরেন্দ্র মোদী।’’ 

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত