আপ-কংগ্রেস জোট নিয়ে ধোঁয়াশা অব্যাহত, আশা নেই, বললেন মণীশ সিসোদিয়া
কংগ্রেসের প্রস্তাবে তাদের সায় রয়েছে এবং খুব শীঘ্র জোটের ঘোষণা হতে পারে বলে শুক্রবারই আপের তরফে ঘোষণা করা হয়েছিল।
Rahul Gandhi Arvind Kejriwal

রাহুল গাঁধী ও অরবিন্দ কেজরীওয়াল। —ফাইল চিত্র।

কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের আশা নেই, জানিয়ে দিল আম আদমি পার্টি (আপ)লোকসভা নির্বাচনে দিল্লি, হরিয়ানা ও চণ্ডীগড়ে দুই দলের জোট হওয়ার কথা ছিল। প্রায় চারমাস ধরে তা নিয়ে চলছিল আলাপ আলোচনাও। কিন্তু শেষ মেশ আসন সমঝোতায় পৌঁছনো যায়নি। দিল্লি ছাড়া আর কোথাও আপের সঙ্গে জোটে যেতে রাজি হয়নি কংগ্রেস। তাই শুধুমাত্র দিল্লির জন্য জোট গড়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছেন আপ নেতৃত্বও। জোট না গড়ে ওঠার জন্যও কংগ্রেসকে দায়ী করেছেন তাঁরা। তাঁদের অভিযোগ,আদৌ জোট গড়ার ইচ্ছা ছিল না কংগ্রেসের। আলোচনার নামে অযথা সময় নষ্ট করেছে তারা।

কংগ্রেসের প্রস্তাবে তাদের সায় রয়েছে এবং খুব শীঘ্র জোটের ঘোষণা হতে পারে বলে শুক্রবারই আপের তরফে ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু শনিবার দুপুরে সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিলেন দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী তথা দলের অন্যতম শীর্ষ নেতা মণীশ সিসোদিয়াই।  এ দিন সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, “হরিয়ানায় জোটে যাওয়ার ইচ্ছাই ছিল না কংগ্রেসের। অযথা সময় নষ্ট করছিল ওরা।”

সিসোদিয়া আরও জানান, “তিন রাজ্যের ১৮টি আসনে মোদী-শাহ জুটিকে হারানোর লক্ষ্যেই কংগ্রেসের সঙ্গে জোট গড়তে রাজি হয়েছিলাম আমরা। হরিয়ানায় আসন সমঝোতা হয়েও গিয়েছিল। কিন্তু শেষ বার আলোচনায় যা স্থির হয়েছিল, তা থেকে পিছু হটে কংগ্রেস।”

আরও পড়ুন: ‘মোদী’ ওয়েব সিরিজ বন্ধের নির্দেশ দিল নির্বাচন কমিশন​

লোকসভায় দিল্লিতে সাতটি আসন। সেখানে তিনটি আসনে প্রার্থী দাঁড় করাতে চেয়েছিল কংগ্রেস। কিন্তু তাদের এই দাবি অন্যায্য বলে মত মণীশ সিসোদিয়ার। তাঁর কথায়, “দিল্লিতে আম আদমি পার্টির ৪ জন সাংসদ এবং ২০ জন বিধায়ক রয়েছেন। কংগ্রেসের দখলে নেই একটি আসনও। তা সত্ত্বেও কোন যুক্তিতে ৩টি আসন চাইছে ওরা?” তিনিই আরও বলেন,“দিল্লিতে আপের ভিত যথেষ্ট মজবুত। কংগ্রেস ধারে কাছেও নেই। ওদের তিনটি আসন ছেড়ে দেওয়ার অর্থ বিজেপিকে তিনটি আসন পাইয়ে দেওয়া।”

হরিয়ানায় ইতিমধ্যেই দুষ্মন্ত চৌটালার জনায়ক জনতা পার্টির (জেজেপি) সঙ্গে হাত মিলিয়েছে আম আদমি পার্টি। সেখানে ১০টি আসনের মধ্যে তিনটিতে লড়বে তারা। শুরুতে এই জোটে যোগ দেওয়ার কথা ছিল কংগ্রেসেরও। ১০টি আসনের মধ্যে ছ’টিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চেয়েছিল তারা। তিনটি ছেড়ে দিতে চেয়েছিল জেজেপিকে এবং একটি  আপকে। কিন্তু শেষ মুহূর্তে কংগ্রেস বেঁকে দাঁড়ায় বলে অভিযোগ।

আপ নেতা সঞ্জয় সিংহ জানান, “আচমকাই আগের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে কংগ্রেস। জেজেপিকে দু’টির বেশি আসন ছাড়তে রাজি হয়নি তারা। সাতটি আসনে নিজেদের প্রার্থী দাঁড় করাবে বলে জেদ ধরে। তাতেও রাজি হয়ে যান দুষ্মন্ত সিংহ। কিন্তু শুক্রবার রাতে নিজে থেকেই পিছু হটে কংগ্রেস। দিল্লি ছাড়া আর কোথাও জোট গড়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেয়।”

আরও পড়ুন: গেরুয়া সন্ত্রাস প্রশ্নে কংগ্রেসকে জবাব দিতেই প্রার্থী করা হয়েছে সাধ্বীকে: মোদী​

কিন্তু শুধুমাত্র দিল্লিতে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট গড়বে কি আপ? তা নিয়ে স্পষ্ট ভাবে কিছু জানাননি আপ নেতৃত্ব। শুধুমাত্র কংগ্রেসকে তিনটি আসন দেওয়া নিয়েই আপত্তি তুলেছেন তাঁরা। তবে সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, হরিয়ানায় জোটের সম্ভাবনা একেবারেই না থাকলেও, আপ নেতৃত্ব দিল্লিতে এখনও জোটের রাস্তা খুলে রাখছেন। তবে সে ক্ষেত্রে সাতটির মধ্যে পাঁচটি আসনে নিজেদের প্রার্থী দাঁড় করাতে চান তাঁরা। যদিও তাতে সায় নেই কংগ্রেসের। দিল্লির সাতটি আসনে ইতিমধ্যেই  প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়েছে অরবিন্দ কেজরীবালের দল। তবে কংগ্রেস বা বিজেপির তরফে এখনও পর্যন্ত কোনও ঘোষণা হয়নি। আগামী ২৩ এপ্রিল মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন। যার পর ২৬ এপ্রিল চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হবে।  

(কী বললেন প্রধানমন্ত্রী, কী বলছে সংসদ- দেশের রাজধানীর খবর, রাজনীতির খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)

নির্বাচনী নির্ঘণ্ট

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

  • সকলকে বলব ইভিএম পাহারা দিন। যাতে একটিও ইভিএম বদল না হয়।

  • author
    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলনেত্রী

আপনার মত