পাপনাশিনীর তীর থেকে বার্তা ‘ঘরের ছেলে’র
মোদী, অমিত শাহেরা আক্রমণ করছেন, অমেঠীতে বিপদ বুঝে ‘মুসলিম-অধ্যুষিত’ ওয়েনাডে পালিয়েছেন রাহুল!
Rahul Gandhi

তিরুনেল্লিতে কংগ্রেস সভাপতি। ছবি: পিটিআই।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কেন্দ্র বারাণসী। তাঁর প্রতিপক্ষ রাহুল গাঁধী কেরলে এসে পুজো দিলেন তিরুনেল্লির মহাবিষ্ণু মন্দিরে, যার পরিচয় দক্ষিণ ভারতের বারাণসী নামে।

মোদী, অমিত শাহেরা আক্রমণ করছেন, অমেঠীতে বিপদ বুঝে ‘মুসলিম-অধ্যুষিত’ ওয়েনাডে পালিয়েছেন রাহুল! সেই ওয়েনাডেই হিন্দু তীর্থে রীতি মেনে পুজো দিয়ে মোদী-শাহদের নীরব বার্তা পাঠালেন কংগ্রেস সভাপতি। 

নিজের দক্ষিণী কেন্দ্রে প্রচার করতে এসে নীরব এবং সরব— দু’ভাবেই মোদী-শাহদের নিশানায় রাখলেন রাহুল। মন্দির দর্শনের পরে ওয়েনাড কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি সভাতেই তিনি বললেন, ‘‘আমি তেমন রাজনীতিক নই যে, নিজের ‘মন কি বাত’ আপনাদের শোনাতে ব্যস্ত থাকব! আমি আপনাদের মনের কথা বুঝতে চাই।’’ 

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

বোঝাই যাচ্ছে, কটাক্ষের ইঙ্গিত মোদীর দিকে। আগের বার ওয়েনাডে এসেই জানিয়ে দিয়েছিলেন বামেদের বিরুদ্ধে কিছু বলবেন না। স্বআরোপিত শর্ত মেনেই দু’দিনের কেরল সফরে বামেদের বিরুদ্ধে একটি কথাও বলেননি কংগ্রেস সভাপতি। ওয়েনাডের মানুষকে রাহুল অবশ্য বোঝানোর চেষ্টা করেছেন, এখানে তিনি ঘরের লোকই হতে চান। 

রাহুলের কথায়, ‘‘দক্ষিণ ভারতে ওয়েনাড ছিল আমার কাছে ‘অটোমেটিক চয়েস’। সব ধর্ম, সব ভাবনার মানুষ আছেন এখানে। কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে এখানে আসিনি। আপনাদের ভাই, ঘরের ছেলে হয়ে থাকতে চাই। আপনাদের সঙ্গে থেকে এখানকার দুঃখ-কষ্ট বুঝতে চাই।’’

প্রার্থনা: দ্বিতীয় দফায় ভোটের আগে ওয়েনাডে পুজো দিচ্ছেন রাহুল গাঁধী। বুধবার। ছবি: পিটিআই।

অতীতে ইন্দিরা গাঁধী ও সনিয়া গাঁধী দক্ষিণ ভারত থেকে জিতেও পরে সেই কেন্দ্র ছেড়ে দিয়েছিলেন। কংগ্রেস নেতারা মনে করছেন, জিতলে ওয়েনাড যে রাহুল ছাড়বেন না, সেই ইঙ্গিত এ বার স্পষ্ট। বরং, অমেঠী পরে ছেড়ে দিতে পারেন প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরার জন্য। দাদার হয়ে ব্যাট ধরতে প্রিয়ঙ্কা আবার কেরলে আসছেন প্রচারের শেষ দু’দিন, ২০ ও ২১ এপ্রিল।

দক্ষিণ ভারতের এই পাহাড়-জঙ্গল ঘেরা তালুককে নিজের পরিবারের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে নিতে চেষ্টার ত্রুটি করেননি রাহুল। কান্নুর জেলার তিরুনেল্লিতে পাপনাশিনী নদীর জলে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গাঁধীর চিতাভষ্ম বিসর্জন দিয়েছিলেন কেরলের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, অধুনা প্রয়াত কে করুণাকরন।

মহাবিষ্ণু মন্দিরের রীতি মেনে সেই পাপনাশিনীর জলেই এ দিন ইন্দিরা, রাজীব ও পুলওয়ামায় নিহত জওয়ানদের স্মৃতি তর্পণের ফুল ভাসিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি। একেবারেই ব্যক্তিগত আচার। কিন্তু তার মধ্যেও রাজনৈতিক বার্তা নিহিত। পরে রাহুল বলেছেন, ‘‘পাপনাশিনীর ধারে এই জায়গা প্রশান্তি ও নির্মলতার মরূদ্যান। বাবার চিতাভষ্ম বিসর্জন হয়েছিল এখানে। বাবার সঙ্গে কাটানো দিনগুলোর মধুর স্মৃতি এখানে এসে মনে পড়ছে।’’

তিরুনেল্লি থেকে বেরিয়ে ওয়েনাড কেন্দ্রের মধ্যে সুলতান বাতেরি, তিরুআমবাডি ও ওয়েন্ডুরে তিনটি সভা করেছেন প্রার্থী রাহুল। পরে পালাক্কাডের ত্রিতালায় সভা করে কোয়ম্বত্তূর চলে গিয়েছেন দিল্লির উড়ান ধরতে। সুলতান বাতেরির সভার পরে কাছের এক গেস্ট হাউসে দুপুরের খাওয়া সেরেছেন কেরলের প্রথম জনজাতি থেকে সিভিল সার্ভিস উত্তীর্ণা প্রার্থী শ্রীধন্যা সুরেশের সঙ্গে। ওয়েনাডের বাসিন্দা শ্রীধন্যাকে পরীক্ষার ফল বেরোনোর পরেই ফোন করেছিলেন, এ বার তাঁকে ডেকে নিয়ে কথা বলে গেলেন।

গোটা সফরনামায় স্পষ্ট, ওয়েনাডের সঙ্গে সম্পর্কের সুতো বেঁধে ফেলছেন রাহুল গাঁধী!

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত