'বিজেপির দিকে আঙুল তুললে, সেটা আর অক্ষত থাকবে না', হুঁশিয়ারি মন্ত্রীর
বৃহস্পতিবার জেলা সদর দফতর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে সইদপুরে 'কৃষাণ পঞ্চায়েত সম্মেলন' নামে একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন তিনি।
Manoj Sinha

মনোজ সিনহা। ফাইল চিত্র।

বিজেপির দিকে আঙুল তুললে সেই আঙুল আর অক্ষত থাকবে না, চোখ তুললে সেই চোখও সুরক্ষিত থাকবে না! ভরা জনসভায় প্রকাশ্যে হুঁশিয়ারি দিলেন উত্তরপ্রদেশের গাজিপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী মনোজ সিনহা

বৃহস্পতিবার জেলা সদর দফতর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে সইদপুরে 'কৃষাণ পঞ্চায়েত সম্মেলন' নামে একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন তিনি। সেখানেই  উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের সামনে বিজেপির এই মন্ত্রী এমন হুঁশিয়ারি দেন।

মনোজ সিনহা রেল এবং যোগাযোগ মন্ত্রকের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী। বিজেপির এই নেতা তিনবার গাজিপুরের সাংসদ হয়েছেন। এ বার তাঁর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বহুজন সমাজ পার্টির প্রার্থী আফজল আনসারি।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

বৃহস্পতিবার তিনি নির্বাচনী প্রচারেই গিয়েছিলেন। মঞ্চে বক্তৃতা করার সময় তিনি বলেন, "বিজেপির কর্মীর দিকে যদি কোনও আঙুল তাক করা হয়, তাহলে তার চার ঘণ্টার মধ্যে সেই আঙুল আর অক্ষত থাকবে না।" ৫৯ বছরের মন্ত্রীর মুখ থেকে এই বক্তৃতা শোনার পরই স্লোগানের ঝড় ওঠে ভিড়ের মধ্যে থেকে। এখানেই থেমে থাকেননি মন্ত্রী। নিজের বক্তৃতায় তিনি বারবারই তাঁর লোকসভা এলাকা থেকে দুর্নীতি এবং অপরাধ দূর করার কথা বলছিলেন। সেটা বলতে গিয়ে শুধু আঙুল অক্ষত না রাখার উদাহরণই তিনি টেনে আনেননি। এর পরই তাঁর হুমকি, 'বিজেপির কর্মীরা বেআইনি অর্থ এবং দুর্নীতি দূর করতে বদ্ধপরিকর। কেউ যদি তাঁদের চোখ রাঙানোর দুঃসাহস দেখায়, তাহলে সেই চোখগুলোও আর সুরক্ষিত থাকবে না।'

আরও পড়ুন: হেমন্ত করকরে দেশবিরোধী, তাঁর অভিশাপেই মৃ্ত্যু হয়েছে, বললেন সাধ্বী প্রজ্ঞা!

সম্প্রতি একটি জনসভায় জওহরলাল নেহরুকে নিয়ে তিনি বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, জওহরলাল নেহরুর বদলে যদি সর্দার বল্লভভাই পটেল দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হতেন তাহলে আজ দেশকে এই সন্ত্রাসের ভুক্তভোগী হতে হত না।

মনোজ সিনহার বৃহস্পতিবারের এই হুঁশিয়ারি নিয়ে এখনও কোনও দলই কিছু মন্তব্য করেনি। নির্বাচন কমিশন এখনও তাঁর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করেনি।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত