মর্জির বিরুদ্ধে বিয়ে দিতে চেয়েছিল পরিবার। তাতে রাজি না হওয়ায় হেনস্থা চলছিল লাগাতার। পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে এ বার এমন অভিযোগ তুললেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্রনাথ সিংহের মেয়ে ভারতী সিংহ। তাঁর দাবি, ভুয়ো নথি তৈরি করে তাঁকে মানসিক ভাবে অসুস্থ প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চলছে। মধ্যপ্রদেশে হাইকোর্টে নিরাপত্তার আর্জিও জানিয়েছেন তিনি।

বছর আঠাশের মেয়ে নিখোঁজ বলে গত ১৬ অক্টোবর ভোপালের কমলানগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন সুরেন্দ্রনাথ। মেয়ে মানসিক ভাবে অসুস্থ বলেও দাবি করেন তিনি। তার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিয়ো প্রকাশ করেন ভারতী সিংহ। তিনি জানান, এক রাজনীতিকের ছেলেকে বিয়ে করতে জোর করা হচ্ছিল তাঁকে। তাতে রাজি না হওয়ায় লাগাতার হেনস্থা করা হচ্ছিল। তাই নিজের ইচ্ছাতেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসেছেন। আগেও বেশ কয়েক বার বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারতী বলেন, ‘‘আমি মানসিক ভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ। ক্ষমতার অপব্যবহার করে ভুয়ো নথি তৈরি করেছে আমার পরিবার। আমাকে মানসিক ভাবে অসুস্থ প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চলছে। ওদের মতো ক্ষমতা নেই আমার। তাই ওরকম কিছু করা সম্ভব নয় আমার পক্ষে। কিন্তু কোনওমতেই আর বাড়ি ফিরতে চাই না আমি। আমাকে সাহায্য করুন।’’ 

আরও পড়ুন: প্রাক্তন প্রেমিকার সঙ্গে দেবাঞ্জনের সম্পর্ক মানতে না পেরেই খুন, জেরায় কবুল প্রিন্সের​

বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে এসে তিনি ভালই আছেন বলে জানিয়েছেন ভারতী। তাঁর কথায়, ‘‘কোনও মুসলিম বা খ্রিস্টান ব্যক্তির সঙ্গে নেই আমি। বাড়ি ছাড়তে চেয়েছিলাম, তাই বেরিয়ে এসেছি। এর সঙ্গে ধর্ম এবং জাতপাত না জুড়লেই ভাল। শান্তিতে থাকতে চাই আমি। পরিবারের লোকজন আমাকে হেনস্থা করছিল। তাই বেরিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছি।’’

এক আইনজীবী মারফত ইতিমধ্যেই হাইকোর্টে নিরাপত্তার আর্জি জানিয়েছেন ওই তরুণী। তাতে বলা হয়েছে, একটি ফিটনেস সেন্টারে কাজ করছেন তিনি। পাশাপাশি পুণে-তে নিউট্রিশন নিয়ে কোর্সও করছেন। অন্য সম্প্রদায়ের এক যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে তাঁর। বিয়েও করতে চান। কিন্তু এর সঙ্গে বাড়ি ছেড়ে আসার কোনও যোগ নেই। মা অসুস্থ বলে সম্প্রতি পরিবারের লোকজন তাঁকে ফোন করে জানান এবং তিনি ফিরেও যান। কিন্তু ফের জোর জবরদস্তি শুরু হলে তিনি পালিয়ে আসেন বলে জানিয়েছেন ভারতী সিংহের আইনজীবী।

আরও পড়ুন: এক রাতে নাইটক্লাবে উড়িয়েছেন ৮ কোটি! কমল নাথের ভাইপোর বিরুদ্ধে চার্জশিট ইডির​

ভারতীর আইনজীবী অঙ্কিত সাক্সেনা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর হেল্পলাইন এবং মহিলা আয়োগের কাছে গতবছরও পরিবারের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই তরুণী। তার পর পুলিশ তাঁকে ভোপালের হাজেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ইঞ্জেকশন দিয়ে তাঁকে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়।  তাই আদালতের কাছে নিরাপত্তা চেয়েছেন ওই তরুণী। সেই সঙ্গে কমলানগর থানায় সুরেন্দ্রনাথ সিংহের দায়ের করা অভিযোগটিও বাতিল করার আর্জি জানিয়েছেন তিনি। তবে মেয়ের অভিযোগ নিয়ে এখনও পর্যন্ত সংবাদমাধ্যমে মুখ খোলেননি সুরেন্দ্রনাথ।